‘Cookie Theft’ Google is warning YouTube users to be safe

349


#কলকাতা: বর্তমানে সাইবার সিকিউরিটি একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। সমস্ত টেক কোম্পানি তাদের প্ল্যাটফর্ম সিকিউর করার জন্য নানা ধরনের টেকনিক ব্যবহার করে। ইউজারদেরও এই বিষয়ে সতর্ক হওয়া দরকার। কারণ হ্যাকাররা বিভিন্ন ভাবে তাদের ক্ষতি করতে পারে। এদের মধ্যে ফিশিং (Phishing) হল সব থেকে একটি বড় সমস্যা। এর মাধ্যমে হ্যাকাররা ইউজারদের প্রাইভেট তথ্য ও ডেটা হাতিয়ে নিতে পারে। এই জন্য Google-এর তরফে সাবধান করা হল YouTube-এর ইউজারদের- তারা যেন এই ধরনের ফিশিং অ্যাটাক (Phishing Attack) এবং কুকি থেফট (Cookie Theft) থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখে।

ফিশিং অ্যাটাকের (Phishing Attack) মাধ্যমে টার্গেট করা হয় YouTube-এর ইউজারদের-

এই ধরনের অ্যাটাক কুকি থেফট এবং পাস-দ্য-কুকি অ্যাটাক (Cookie Theft) নামে পরিচিত। Google-এর তরফে জানানো হয়েছে যে এই ধরনের টেকনিক অনেক আগে থেকেই ব্যবহার করা হচ্ছে। এর ফলে সুরক্ষার ক্ষেত্রে ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। এই ধরনের টেকনিক ব্যবহার করে শিফটিং অ্যাটাকাররা সোশ্যাল ইঞ্জিনিয়ারের টেকনিক ফলো করছে। যা সুরক্ষার বিষয়ে বড় সমস্যার ব্যাপার।

আরও পড়ুন – ঢোকা যাবে চলতে থাকা কলে, জানুন WhatsApp-এর গ্রুপ ভিডিও কলের নতুন ফিচার

হ্যাকাররা যে ভাবে টার্গেট করছে YouTube-এর ইউজারদের-

হ্যাকাররা প্রথমেই YouTube-এর ইউজারদের একটি ফেক বিজনেস ইমেল সেন্ড করছে। সেখানে বলা হচ্ছে তারা সেই ইউজারের সঙ্গে ভিডিও অ্যাড কোলাবরেশন করতে চায়। এর পর সেই ডিল পাকা হলে ইমেলের মাধ্যমে ফিশিং লিঙ্ক  (Phishing Attack) পাঠিয়ে তার সিস্টেম হ্যাক করা হয়। হ্যাকাররা বিভিন্ন ধরনের ডোমেনে রেজিস্টার করা থাকে। তারা অনেকগুলো ওয়েবসাইট তৈরি করে জাল কোম্পানির নামে এই সব লিঙ্ক ইউজারদের পাঠায়। এর মাধ্যমে হ্যাকাররা টার্গেট করে YouTube-এর ইউজারদের ।

আরও পড়ুন – পাঠিয়েই ডিলিট করে দেন অনেকে; WhatsApp-এ সেই মেসেজও পড়া সম্ভব কী ভাবে ?

এই ধরনের অ্যাটাক থেকে বাঁচার উপায়-

Google-এর তরফে এই সম্পর্কে বিভিন্ন ধরনের টিপস দেওয়া হয়েছে যা YouTuber-রা ফলো করতে পারে। Google-এর সেফ ব্রাউজিং ফিচার ব্যবহার করে হ্যাকারদের থেকে নিজেদের সুরক্ষিত রাখা সম্ভব। Google-এর তরফে অ্যান্টিভাইরাস অথবা ভাইরাস স্ক্যানিং টুলস ব্যবহার করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়াও ইউজাররা ২-স্টেপ ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে নিজেদের অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে পারে। এটি নিজেদের অ্যাকাউন্টকে বাড়তি সুরক্ষা দিতে সাহায্য করে। এর ফলে পাসওয়ার্ড চুরি হয়ে গেলেও নিজেদের অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত থাকবে। এর জন্য ১ নভেম্বর থেকে কয়েকটি ইউজারদের জন্য এই ২-স্টেপ ভেরিফিকেশন বাধ্যতামুলক করা হচ্ছে। এর ফলে YouTube ক্রিয়েটরদের ২-স্টেপ ভেরিফিকেশন বাধ্যতামূলক ভাবে টার্ন অন করতে হবে।



Source link