‘‌মোদী কোড অফ কন্ডাক্ট নামকরণ করা উচিত’‌, বিস্ফোরক টুইট মমতার

0
85

কলকাতা, ১১ এপ্রিল – আগামী ৭২ ঘণ্টা কোনও নেতা–নেত্রী ঢুকতে পারবেন না কোচবিহার জেলায়। চতুর্থ দফার ভোটে চরম অশান্তির জেরে শনিবার রাতে এই মর্মে নিষেধাজ্ঞা জারি করে নির্বাচন কমিশন। সুতরাং অস্থায়ী হেলিপ্যাড তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেলেও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের রবিবারের কোচবিহার সফর বাতিল হয়ে যায় কমিশনের নিষেধাজ্ঞার পরেই। নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তকে তুলোধনা করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রবিবার সকালে তিনি একটি টুইট করেন। আর সেখানেই নির্বাচন কমিশনকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন তিনি। ঠিক কী লিখেছেন টুইটে?‌ রবিবাসরীয় সকালে তৃণমূল সুপ্রিমো লিখেছেন, ‘‌নির্বাচন কমিশনের উচিত আদর্শ আচরণ বিধি বা মডেল কোড অফ কন্ডাক্টের নাম পরিবর্তন করা। আর নামকরণ করা মোদী কোড অফ কন্ডাক্ট।’‌ কথা ছিল, মাথাভাঙা হাসপাতালের পাশে মাঠে হেলিপ্যাডে নেমে হাসপাতালের মর্গে শায়িত চারটি মৃতদেহে শ্রদ্ধা জানাবেন তিনি। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ আসার পরেই অস্থায়ী হেলিপ্যাড তৈরির কাজ স্থগিত রাখা হয়। আর জানা যায়, কোচবিহার যাচ্ছেন না মমতা।

আরও পড়ুন : প্রচারের সময়সীমা কমল, ৭২ ঘণ্টা আগেই পঞ্চম দফার প্রচার বন্ধ করার নির্দেশ কমিশনের

এরপরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইটে লেখেন, ‘‌বিজেপি তার হাতে থাকা সবকিছু ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু বিশ্বের কোনও কিছু আমাকে থামাতে পারবে না মানুষের সঙ্গে থাকা থেকে। আর মানুষের যন্ত্রণা ভাগ করে নেওয়ার থেকে।’‌ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন, তিনি রবিবার শীতলকুচি গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করবেন। নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করবেন। তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে রাজ্যজুড়ে কালো ব্যাজ পরে প্রতিবাদ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়। শিলিগুড়ি পৌঁছে গিয়েছিলেন তৃণমূলনেত্রী। তবে কমিশনের নিষেধাজ্ঞার পরে তাঁর কোচবিহার সফর বাতিল হল।

উল্লেখ্য, পঞ্চম দফার নির্বাচনেও ভোটগ্রহণের ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার শেষ করার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। রাজ্যের পঞ্চম দফার ভোটগ্রহণ আগামী ১৭ এপ্রিল। কোচবিহারে যেতে না পারার ক্ষোভও উগড়ে দিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী তাঁর টুইটে। তিনি লিখেছেন, ‘‌ওরা আমাকে আমার কোচবিহারের ভাই–বোনেদের সঙ্গে দেখা করা আটকাবার চেষ্টা করেছে। কিন্তু সেটা তিন দিনের জন্য। চতুর্থ দিন আমি সেখানে যাবই।’‌

সূত্র : হিন্দুস্থান টাইমস
এন এ/ ১১ এপ্রিল

Source link