৫০০ কোটি ব্যয় রামায়ণে, চরিত্রে যেসব নায়ক-নায়িকা!

বিনোদন ডেস্কঃ বড়পর্দায় এবার রাম-সীতার কাহিনি। রামায়ণ মহাকাব্য নিয়ে ছবি তৈরি করতে চলেছেন বলিউড পরিচালক নীতেশ তিওয়ারি। গত মাসেই এই খবর সামনে এসেছিল। কিন্তু চরিত্রায়ণে কারা থাকবেন, তা জানা যায়নি। কিন্তু বলিউডের অন্দরে শোনা যাচ্ছে সেই ছবিতেই নাকি রামের চরিত্রে অভিনয় করবেন হৃতিক রোশন আর সীতার চরিত্রে দেখা যাবে দীপিকা পাড়ুকোনকে। যদিও নীতিশ স্বাভাবিকভাবেই এসব নিয়ে কোনও কথা বলেননি। ‘গুজব’ বলে তিনি এড়িয়েই গিয়েছেন।

হৃতিক আর দীপিকা দু’জনেই একে অপরের সঙ্গে ছবি করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন। তারপর থেকে দিন গুণছে সিনেপ্রেমীরা। কিন্তু কখনও সময়, কখনও চিত্রনাট্য, আবার কখনও স্রেফ পরিচালকের কারণে আজ পর্যন্ত তাঁদের একসঙ্গে দেখা যায়নি। কিছুদিন আগে শোনা গিয়েছিল ‘সত্তে পে সত্তা’র রিমেকে দেখা দেবে এই জুটি। পরিচালনা করবেন ফারহা খান এবং প্রযোজনা করবেন রোহিত শেট্টি। যদিও প্রথমে শোনা গিয়েছিল রবি আনন্দ চরিত্রের অফার গিয়েছিল শাহরুখ খানের কাছে। কিন্তু ‘দিলওয়ালে’র পর থেকেই রোহিত এবং শাহরুখের সম্পর্কে বরফ জমেছে। এরপরই নির্মাতাদের তরফে হৃতিকের কাছে প্রস্তাব যায়। তিনিও নাকি অমত করেননি। এদিকে ইন্দুর চরিত্রের জন্য ক্যাটরিনার নাম শোনা গিয়েছিল। কিন্তু ফারহার সঙ্গে সুসম্পর্কের জোরে চরিত্রটি হাতিয়ে নেন দীপিকা। কিন্তু সে গুড়ে বালি। শেষ খবর পাওয়া গিয়েছে, ইন্দুর চরিত্রে দেখা যাবে অনুষ্কা শর্মাকে। ফলে হৃতিক-দীপিকা জুটিকে ‘সত্তে পে সত্তা’ ছবিতে দেখার আশা নেই। কিন্তু এই নিরাশার মধ্যে আশার আলো দেখাল ‘রামায়ণ’।

!-- Composite Start -->
Loading...

পরিচালক নীতীশ তিওয়ারি জানিয়েছেন, গোটাটাই গুজব। রামায়ণ তৈরি হবে ঠিকই। কিন্তু রাম ও সীতার চরিত্রে কারা অভিনয় করবেন, তা এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তিনি এনিয়ে ভাবনাচিন্তাই শুরু করেননি। প্রথমে তাঁরা কাগজে কলমে একটি পরিকল্পনা তৈরি করে নিতে চান। খসড়া তৈরির পরই এবিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন তিনি ও তাঁর সহ-পরিচালক রবি উদয়ওয়ার। ‘রামায়ণ’ মহাকাব্যকে সেলুলয়েডে আনতে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা খরচ করছেন প্রযোজকরা। ছবিটি 3D-তে তৈরি হবে। ইতিমধ্যেই এর সঙ্গে অনেক বড় নাম যুক্ত হয়ে গিয়েছে। জানা গিয়েছে ফ্যান্টম ফিল্মসের প্রতিষ্ঠাতা মধু মালহোত্রাও রয়েছেন। হিন্দি ছাড়াও তেলুগু ও তামিল ভাষাতেও তৈরি হবে ছবিটি।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.