Clamate_Change

৩০ বছরের মধ্যে নিশ্চিহ্ন হবে কলকাতা-মুম্বাই!

জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বের বহু দেশে আবহাওয়ার বিরূপ পরিবর্তন দেখা দিতে শুরু করেছে। আবহাওয়ার এমন পরিবর্তনে বিশ্বের কোনো না কোনো অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, টাইফুন কিংবা সুনামির মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ প্রতিনিয়ত আঘাত হানছে। জলবায়ুর এমন আচরণে সারা বিশ্ব হুমকির মধ্যে থাকলেও ভারত সম্পর্কে চমকে যাওয়ার মতো তথ্য দিলেন আমেরিকার একদল গবেষক।

তারা জানিয়েছেন, আগামী ৩০ বছরের মধ্যে ভারত থেকে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কলকাতা ও মুম্বাই শহর।

!-- Composite Start -->
Loading...

আমেরিকার নিউ জার্সির ক্লাইমেট সেন্ট্রাল সংস্থার ওই গবেষণা অনুযায়ী, ২০৫০ সাল নাগাদ সমুদ্রে পানির উচ্চতা এতটাই বৃদ্ধি পাবে যে, উপকূলের শহরগুলো পুরোপুরিভাবে পানির নিচে তলিয়ে যাবে। আর এর ফলে আনুমানিক ১৫ কোটি বাসিন্দার বাড়িঘর নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে।

আমেরিকার গবেষকদের এমন তথ্যের বরাত দিয়ে নিউইয়র্ক টাইমস এ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাই শহর পানির নিচে চলে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। বিশেষ করে একাধিক ছোট দ্বীপের উপর গড়ে তোলা এই শহরের পুরনো অংশ সবচেয়ে বেশি হুমকির মুখে রয়েছে।

সমীক্ষায় গবেষকরা দেখিয়েছেন, ভবিষ্যতে পানির নিচে তলিয়ে যাবে এমন তালিকায় থাকা উপকূলবর্তী শহরগুলিতে বর্তমানে ৩০ কোটি মানুষ বসবাস করেন। হুমকির মধ্যে থাকা দেশগুলোর সরকার দূষণ মাত্রা কমাতে সফল হলেও আগামী ৩০ বছরের মধ্যে ওই সমস্ত অঞ্চলে বছরে অন্তত একবার বন্যা দেখা দেবে। উপকূল সংকটের তালিকায় স্থান পেয়েছে চীন, বাংলাদেশ, ভারত, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, ফিলিপাইন ও জাপান।

মার্কিন সমীক্ষায় আরও দেখা গেছে, দক্ষিণ ভিয়েতনাম পুরোপুরি সমুদ্রের নিচে উধাও হয়ে যাবে এবং থাইল্যান্ডের ১০ ভাগ জমি সাগরগর্ভে বিলীন হবে।

অন্যদিকে, চীনের সাংহাই শহরের ভেতরে ছাড়াও ফুলে ফেঁপে ওঠা সমুদ্র গ্রাস করবে উপকূলীয় একাধিক শহরকে।

গত সেপ্টেম্বর মাসে জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত আন্তঃরাষ্ট্রীয় প্যানেল (আইপিসিসি) প্রকাশিত রিপোর্টে সতর্ক করা হয়েছে যে, বিশ্বের কার্বন নির্গমন মাত্রা অনিয়ন্ত্রিত থাকলে আগামী ২১০০ সালের মধ্যে সারা বিশ্বে সমুদ্রের জলস্তর অন্তত এক মিটার বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে উপকূলবর্তী কয়েকশ’ শহর চিরতরে পৃথিবী থেকে মুছে যাবে।

মতামত দিন

Post Author: bdnewstimes