হবিগঞ্জে নারী ভোটারের উপস্থিতি বেশি

0
89

হবিগঞ্জ, ১৪ ফেব্রুয়ারি – চলমান পৌরসভা নির্বাচনের চতুর্থ ধাপের নির্বাচনে হবিগঞ্জের চুনারুঘাট পৌরসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরুর সঙ্গে সঙ্গে ই বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটারদের ভিড় বাড়তে শুরু করেছে। সকাল সাড়ে ৭টা থেকেই কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন ধরে দাঁড়াতে দেখা গেছে।

রোববার (১৪ ফেব্রুয়ারি) সকালে পৌরসভার হাজী ইয়াসিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে এমন দৃশ্য দেখা গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, সকাল থেকেই ভোটাররা তাদের ভোট দিতে লাইনে দাঁড়িয়েছে। বিশেষ করে পুরুষের থেকে নারী ভোটারদের উপস্থিতি ছিলো চোখে পরার মতো।

হাজী ইয়াসিন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে কথা হয় কয়েকজন নারী ভোটারদের সঙ্গে। তারা জানান, ভিড় বাড়ার আগেই ভোট দিতে তারা ভোর থেকে লাইনে দাঁড়িয়েছেন। নিজেদের ভোট দেওয়া শেষ হলে অন্যদের ভোটকেন্দ্রে নিয়ে আসতে সহযোগিতা করবেন তারা। এছাড়া সকাল সকাল ভোট দিয়ে গিয়ে বাড়ির কাজ করবেন।

আরও পড়ুন : পূর্ণাঙ্গ স্থলবন্দরের রুপ পাচ্ছে সিলেটের আরেকটি শুল্ক স্টেশন

এদিকে, কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের লক্ষ্যে প্রায় প্রতিটি কেন্দ্রেই বিপুল পরিমাণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা রয়েছেন। তারা ভোটারদের ভোট প্রদানে নানাভাবে সাহায্য করছেন।

এছাড়া, মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে ভোটকেন্দ্রের বাইরে ও ভিতরে রাখা হয়েছে সচেতনতামূলক ব্যনার। যাতে স্বাস্থ‌্যবিধি মানার জন্য বিভিন্ন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম-সচিব ও পরিচালক (জনসংযোগ) এস এম আসাদুজ্জামান জানান, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আয়োজনের জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েন করা হয়েছে। ভোটকেন্দ্র ছাড়াও নির্বাচনি এলাকায় বিজিবি, পুলিশ, আনসার মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া মোবাইল টিম টহল দেবে এবং স্ট্রাইকিং ফোর্সও মোতায়েন রয়েছে।

ইসির দেওয়া তথ্যমতে, ৫৫টি পৌরসভায় তিন পদে ২ হাজার ৯০৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। এরমধ্যে মেয়র পদে ২১৭, সংরক্ষিত নারী কমিশনার পদে ৬১৮ জন এবং সাধারণ কমিশনার পদে ২ হাজার ৭০ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। চতুর্থ ধাপে ৭৯৩টি ভোটকেন্দ্রের ৪ হাজার ৮৮৯ ভোটকক্ষে ১৬ লাখ ৬৭ হাজার ২২৪ জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ পাবেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮ লাখ ৩২ হাজার ৪২৮ জন এবং মহিলা ভোটার ৮ লাখ ৩৪ হাজার ৭৮৬ জন।

উল্লেখ্য, দেশে পৌরসভা রয়েছে ৩২৯টি। প্রথম ধাপের তফসিলের ২৪টি পৌরসভায় ইভিএমে ভোট হয় ২৮ ডিসেম্বর। ১৬ জানুয়ারি দ্বিতীয় ধাপের ৬১ পৌরসভায় ভোট হয়েছে। আর তৃতীয় ধাপে ৬৪টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ হয় ৩০ জানুয়ারি। চতুর্থ ধাপে ১৪ ফেব্রুয়ারি এবং পঞ্চম ধাপে ২৮ ফেব্রুয়ারি ভোটগ্রহণ হবে।

আইন অনুযায়ী, মেয়াদ শেষের পূর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যেই পৌরসভার ভোট করতে হয়। স্থানীয় সরকার আইন সংশোধনের পর ২০১৫ সালে প্রথম দলীয় প্রতীকে ভোট হয় পৌরসভায়। সেবার ২০টি দল ভোটে অংশ নেয়।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ১৪ ফেব্রুয়ারি

Source link