সারাদেশের টিলা রক্ষার প্রশ্নে হাইকোর্টের রুল

0
80

চট্টগ্রাম, ০৮ ফেব্রুয়ারি – ক্রিকেট চরম অনিশ্চয়তার খেলা। চট্টগ্রাম টেস্ট যেন তারই উদাহরণ। প্রথম চার দিন ম্যাচ নিয়ন্ত্রণে রেখেও শেষ দিনে পাত্তা পেল না টাইগাররা। কায়েল মায়ার্সের অতিমানবীয় ডাবল সেঞ্চুরির ওপর ভর করে সিরিজে ১-০ তে এগিয়ে গেল ক্যারবীয়রা।

ম্যাচ শেষে টাইগার কাপ্তান মুমিনুল হক বলেন, ‘এভাবে হেরে যাওয়া আসলেই অবিশ্বাস্য। কিন্তু এটাই গোল বলের খেলা। ক্রিকেটে অবিশ্বাস্য অনেক কিছুই হয়ে যায়। প্রত্যাশায় ছিল না এমন কিছু হবে। আমার কাছে মনে হয় বোলাররা ভালো জায়গায় বল করতে পারেনি। ওদের দুই ব্যাটসম্যান (কাইল মায়ারস ও এনক্রুমাহ বোনার) খুব ভালো ব্যাটিং করেছে।’

আরও পড়ুন : বুমরাহকে বাদ দিতে বললেন গম্ভীর

পুরো ম্যাচের প্রথম চারদিন পুরোপুরি আধিপত্য ছিল বাংলাদেশের। তাই মুমিনুলের মনে একবারের জন্যও আসেনি পরাজয়ের চিন্তা, ‘কোনো সময়ই আমার কাছে মনে হয়নি (হেরে যাব)। আমরা প্রথম ইনিংসে ভালো খেলেছি, গত চারদিন দাপট দেখিয়েছি। আজ শেষের দিকে ম্যাচটা হেরে গেছি। আমি চিন্তাও করিনি শেষদিকে ম্যাচটা হেরে যাব।’

ম্যাচ হারলেও নির্দিষ্ট কাউকে দোষ দেয়ার পক্ষে নন টাইগারদের টেস্ট অধিনায়ক। তার কথা, ‘যখন দল হারবে, তখন নির্দিষ্ট করে দোষ দিতে পারবেন না। দল হারা মানে সবাই হারা, দল জেতা মানে সবাই জেতা। আমার কাছে এমন কিছু বোধগম্য হয় না (পরাজয়ের নির্দিষ্ট কোনো কারণ আছে)। দল যখন হেরেছে, সবাই একসাথে হেরেছি।’

চট্টগ্রামের এ পরাজয় ভুলে এখন ঢাকার ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ানোর কথাই ভাবছেন মুমিনুল। তিনি বলেন, ‘অবশ্যই (ঘুরে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা করতে হবে)। ম্যাচ হারলে তো ঘুরে দাঁড়ানোর পরিকল্পনা করতেই হবে। সে হিসেবে ব্যাটিং বলেন, বোলিং বলেন বা ফিল্ডিং- সবকিছু নিয়েই ভাবতে হবে।’

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ০৮ ফেব্রুয়ারি

সম্পুর্ন খবরটি পড়ার জন্য এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ::সারাদেশের টিলা রক্ষার প্রশ্নে হাইকোর্টের রুল first appeared on DesheBideshe.

Source link