“সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে সংবাদকর্মীদের করণীয়’’ শীর্ষক ওরিয়েন্টশন সভা অনুষ্ঠিত

0
93

জয়নাল আবেদীন: আমরা বিশ্বাস করি আমাদের দেশকে নিরাপদ রাখতে হলে, জনগণকে শান্তিতে রাখতে, নাগরিক সেবাকে দৃশ্যমান পরিবর্তন এবং টেকসই করতে হলে শুধুমাত্র সরকার প্রধান বা জনপ্রতিনিধিরা ভূমিকা রাখলে চলবে না। এখানে সাংবাদিকদের ভূমিকা ও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সহিংস উগ্রবাদসহ যেকোন অপরাধ প্রতিরোধে সংবাদকর্মীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে বলে জানান প্রোগ্রাম ম্যানেজার ও ইপসা কক্সবাজারের ফোকাল পার্সন জনাব মোঃ হারুন।
আজ (২৩ সেপ্টেম্বর) বুধবার ইপসা কক্সবাজার অফিস মিলনায়তনে জিসিইআরএফ এর আর্থিক সহায়তায় ইপসার বাস্তবায়নে জনগনের সামাজিক সম্পৃক্ততার মাধ্যমে উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোধ প্রকল্পের এর আওতাধীন কক্সবাজার সদর উপজেলাধীন স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে ওরিয়েন্টেশন আয়োজন করা হয়। আয়োজনের মূল আলোচ্য বিষয় “সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে সংবাদকর্মীদের করণীয়’’। উক্ত ওরিয়েন্টেশন সভার মুল্য আলোচক ছিলেন প্রোগ্রাম ম্যানেজার ও ইপসা কক্সবাজারের ফোকাল পার্সন জনাব মোঃ হারুন। উপস্থাপনায় ছিলেন প্রকল্প উপজেলা ম্যানেজার জনাব আবিদুর রহমান।

উপস্থিত সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানিয়ে জনাব মোঃ হারুন বলেন, “১৯৮৫ সালের ২০ মে”সচেতন যুবকদের সক্রিয় উদ্যোগে সমাজ উন্নয়ন সংগঠন “ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশন (ইপসা)’র উন্নয়ন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণের পদযাত্রা শুরু হয়।
ইপসা সরকারী বেসরকারী বিভিন্ন বিভাগ যেমন, এনজিও বিষয়ক ব্যুরো, সমাজ কল্যাণ বিভাগ, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ, কপিরাইট অফিস, জয়েন্ট ষ্টক কোম্পানী এবং মাইক্রোক্রেডিট রেগুলেটরী অথরিটী কতৃক নিবন্ধীকৃত একটি অলাভজনক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন।
দারিদ্র,ঝুঁকি,প্রান্তিকতা এবং এর মূল কারণ গুলোকে কেন্দ্র করে তৈরী হওয়া ইপসা’র ভিশন,মিশন ও মূল্যবোধের আলোকে সংস্থা উন্নয়ন কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করে থাকে। ইপসা নিজেকে একটি আত্ন:নির্ভরশীল কিন্তু প্রকৃত বাংলাদেশী সমাজ উন্নয়ন সংস্থা হিসাবে বিবেচনা করে যা দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণপূর্ব অংশগুলোতে (বিশেষ করে চট্টগ্রাম,পার্বত্য চট্টগ্রাম ও উপকূলীয় অঞ্চল) কাজ করে।

তিনি আর বলেন, এখন যুবরাই শক্তি। সেই যুব শক্তিকে কাজে লাগাতে আমরা যুব ফোরাম গঠন করেছি। প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদেরকে উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোধে মাঠ পর্যায়ে কাজ করতে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। এসব যুবকরা জীবন দক্ষতার প্রশিক্ষণ নিয়ে ওয়ার্ড পর্যায়ে সর্বস্তরের মানুষের মাঝে উগ্রবাদ ও সহিংসতা প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছে।

মোঃ হারুন তার বক্তব্যে উগ্রবাদ ও সহিংসতা কি? উগ্রবাদের লক্ষণ ও সমাজে চলমান উগ্রবাদ সম্পর্কে ধারণা পেশ করেন। পাশাপাশি এর থেকে উত্তরণের উপায় সম্পর্কে ব্যাপক আলোচনা করেন। প্রকৃত ধর্ম প্রচারক ও উগ্রবাদী রিক্রুটার কারা, তাঁদের মধ্যে পার্থক্য তুলে ধরেন।

সভার শেষের দিকে সাংবাদিকদের তিনটি গ্রুপে ভাগ করা হয়। তারা সেখানে সহিংস উগ্রবাদ প্রতিরোধে সংবাদকর্মীদের করণীয় কি হতে পারে সেই বিষয়ে বেশ কিছু পয়েন্ট উল্লেখ করেন।

সভার শেষ দিকে সাংবাদিকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজার’র সভাপতি ও দৈনিক হিমছড়ির সম্পাদক হাসানুর রশিদ, কক্সবাজার ভিশন ডটকমের সম্পাদক ও সাংবাদিক ইউনিয়ন কক্সবাজার’র সাধারণ সম্পাদক আনছার হোসেন, চ্যানেল আই’র কক্সবাজার স্টাফ রিপোর্টার সরওয়ার আজম মানিক, দৈনিক মানবকণ্ঠ ও অবজারভার’র জেলা প্রতিনিধি ফরহাদ ইকবাল ও ভয়েস অভ্ আমেরিকার রিপোর্টার মোয়াজ্জেম হোসাইন শাকিল।
সভায় কক্সবাজারের স্থানীয় পত্রিকার ২০ জন সাংবাদিক ও ইপসা’র নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।