শৈলকুপায় এক রাতে দুই আ.লীগ নেতা খুন

0
62

আওয়ামী লীগ নেতা লিয়াকত আলী বল্টুকে কুপিয়ে ও ছুরিকাঘাত করা হয়। বুধবার সন্ধ্যার পরে উপজেলার কবিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের গলিতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

নিহত আওয়ামী লীগ নেতা বল্টু আসন্ন পৌর নির্বাচনে শৈলকুপা পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী শওকত আলীর ছোট ভাই ও উমেদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় নুরজাহান ক্লিনিকের মালিক ছিলেন।

পুলিশ জানায়, বুধবার রাতে কবিরপুর এলাকায় ভাইয়ের নির্বাচনী অফিসে বসে ছিলেন বল্টু। এ সময় একদল সন্ত্রাসী বল্টুকে কুপিয়ে জখম করলে তাকে দ্রুত কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে রাত সাড়ে ৯টার দিকে মারা যান তিনি।

অন্যদিকে একই দিন রাত ২টার দিকে কাউন্সিলর প্রার্থী আলমগীর খান বাবুর লাশ নদী থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি পৌর এলাকার কবিরপুর গ্রামের জালাল খানের ছেলে। উপজেলার বারুইপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন কুমার নদ থেকে বাবুর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

শৈলকুপার দেবতলা গ্রামের বাসিন্দারা জানিয়েছেন বাবুর লাশ পাওয়া খবরের কিছু আগে দুইজন ব্যক্তি নদী সাঁতরে পার হতে দেখেছেন।

অভিযোগ ওঠে বল্টুকে কুপিয়ে জখম করে সদ্য লাশ পাওয়া আলমগীর খান বাবুর সমর্থকরা। এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই সাড়ে চার ঘণ্টা পর তার লাশ উদ্ধারের ঘটনাটি রহস্যজনক। প্রাথমিকভাবে পুলিশ এটিকে পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনা মনে করলেও এর পেছনে নেপথ্যের কারণ অনুসন্ধানে মাঠে নেমেছে। এক দিনে আওয়ামী সমর্থক দুই রাজনৈতিক কর্মীর লাশ আসন্ন পৌর নির্বাচনকে আরো সঙ্ঘাতময় ও উত্তপ্ত করে তুলতে পারে বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন।

এ ঘটনার ব্যাপারে শৈলকুপা থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানিয়েছেন, লাশ ময়নাতদন্তের পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

Source link