শৃঙ্খলা বিধানের নামে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শারীরিক শাস্তি দেওয়া ফোজদারী অপরাধঃ শিক্ষা উপমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেছেন, সরকার পর্যায়ক্রমে মাদরাসা শিক্ষাসহ সকল শিক্ষা ব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করবে। এক সময় সরকার শিক্ষার প্রসারের ওপর গুরুত্ব দিয়েছে এবং সফল হয়েছে।
এখন শিক্ষার গুনগত মান এবং অবকাঠামো উন্নয়নে জোর দেওয়া হচ্ছে।
আজ বুধবার রাজধানীর বসিলায় ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে ‘মাদরাসায় উচ্চ শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন’ শীর্ষক আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।
ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আহসান উল্লাহর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন মাদরাসা শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সফিউদ্দিন আহমদ।
বর্তমানে সমাজে নৈতিকতার অভাব সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে উপমন্ত্রী বলেন, যারা ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত, পেশাগত জীবনে তারা নৈতিক ব্যক্তিত্বের অধিকারী হবেন, দেশ ও সমাজ তাই আশা করে। এ সময় তিনি ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত আলেম সমাজকে সর্বোচ্চ নৈতিক হওয়ার আহ্বান জানান।
তিনি বলেন, শারীরিক শাস্তি এক ধরনের ফৌজদারি অপরাধ। শৃঙ্খলা বিধানের নামে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শারীরিক শাস্তি দেওয়া উচিত নয়।
সভায় জানানো হয় মাদরাসা থেকে পাস করে কেউ যেন বেকার না থাকে সেই ব্যবস্থা গ্রহণ করছে সরকার। সরকার ১৮০০ মাদরাসায় ৪ তলা ভবন নির্মাণ করেছে এবং ৬৫৩ মাদরাসায় মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালু করেছে।
ভবিষ্যতে মাদরাসায়ও স্কুলের মতো উপবৃত্তি এবং স্কুল ফিডিং এর ব্যবস্থা করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.