লকডাউনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীই সিদ্ধান্ত নেবেন : কাদের

0
250
kader

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে লকডাউনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাই সিদ্ধান্ত নেবেন বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ সোমবার সচিবালয়ে সমসাময়িক ইস্যু নিয়ে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান তিনি।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশ শাটডাউন কিংবা লকডাউন করা হচ্ছে কি না জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনা সংক্রমণ রোধে লকডাউনের বিষয়ে মাথা গরম করে সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে না। করোনাভাইরাসের এই বিপদের মুহূর্তে দেশ ও জাতিকে রক্ষায় দেশ শাটডাউন বলেন, লকডাউন বলেন, পরিস্থিতি দেখে যখন যে সিদ্ধান্ত নেওয়া দরকার প্রধানমন্ত্রী সেই সিদ্ধান্তই নেবেন।’

সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘করোনাভাইরাস মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ৫০০ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। ২৫ মার্চ জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে এ বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী।’

বঙ্গবন্ধুকন্যা বাংলাদেশের জনস্বাস্থ্য তথা দেশের প্রতিটি নাগরিকের ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও জীবনের নিরাপত্তা রক্ষায় বদ্ধপরিকর বলেও জানান দলের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস সংকট মোকাবিলার জন্য সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করে নিবিড়ভাবে কাজ করে চলেছেন। দেশবাসীর সম্মিলিত সচেতনতা, সতর্কতা ও স্বাস্থ্যবিধি পালনই পারে ভয়াবহ এই সংকট থেকে আমাদের রক্ষা করতে।’

এ সময় বাংলাদেশ তথা বিশ্ববাসীর এই ক্রান্তিলগ্নে সকলকে ধৈর্য, সতর্কতা, দায়িত্বশীলতা, মানবিকতা ও দেশপ্রেমের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলা করার আহ্বান জানান ওবায়দুল কাদের। একইসঙ্গে দোষারোপ ও গুজব না ছড়িয়ে করোনা মোকাবিলায় সম্মিলিতভাবে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘তথ্য গোপনের কিছু নেই, বাস্তবতা অস্বীকার করারও উপায় নেই। জনসমাগম না হয় এমনভাবে প্রচারণা চালাতে হবে করোনার বিরুদ্ধে।’

খাদ্য সংকট সৃষ্টি ও গুজবের বিরুদ্ধে অবস্থান নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেন ওবায়দুল কাদের। দেশে কোনো খাদ্য ঘাটতি নেই জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, মজুতকারীদের বিরুদ্ধে সতর্ক অবস্থান নিতে হবে। এ সময় করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনপ্রতিনিধিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে