রিজেন্ট টেক্সটাইলের লোকসান বেড়ে ৫ গুণ, নো ডিভিডেন্ড ঘোষণা – Corporate Sangbad

72


নিজস্ব প্রতিবেদক : পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি রিজেন্ট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের লোকসান বেড়ে ৫ গুণ হয়েছে। পাশাপাশি ধারাবাহিকভাবে কমছে ডিভিডেন্ডের পরিমান। সর্বশেষ গত ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে রিজেন্ট টেক্সটাইল মিলস সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য লভ্যাংশ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত জানিয়েছে। আলোচিত বছরের জন্য কোম্পানিটি শেয়ারহোল্ডারদের কোনো লভ্যাংশ ঘোষণা করেনি। কোম্পানি সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

রোববার (২১ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের বৈঠকে সর্বশেষ হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা ও অনুমোদনের পর লভ্যাংশের এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

সর্বশেষ হিসাববছরে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি ১ টাকা ৬২ পয়সা লোকসান দিয়েছে। আগের বছর শেয়ার প্রতি ৩১ পয়সা লোকসান করেছিল। সে হিসেবে কোম্পানিটির লোকসান বেড়ে ৫ গুণ দাঁড়িয়েছে।

গত ৩০ জুন, ২০২১ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) ছিল ২৬ টাকা ৫২ পয়সা। ৩০ জুন, ২০২০ তারিখে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভিপিএস) হয়েছিল ২৮ টাকা ৪৬ পয়সা।

এ সময় কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) ছিল মাইনাস ৪১ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি নেট অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো (এনওসিএফপিএস) হয়েছিল ০.৬২ টাকা।

২০১৬ সালে কোম্পানিটি ১৫ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল। এরমধ্যে ১০ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল। ২০১৭ সালে কোম্পানিটি ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল। ২০১৮ সালে কোম্পানিটি ৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল। ২০১৯ সালে কোম্পানিটি ৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছিল। ২০২০ সালে কোম্পানিটি ২ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল। এরমধ্যে ১ শতাংশ নগদ ও ১ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর ডিজিটাল প্ল্যাটফরমের মাধ্যমে বিকাল ৪ টায় কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এর জন্য রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ১২ ডিসেম্বর।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০২১ হিসাব বছরে আয় বেড়েছে রিজেন্ট টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের। আয়ের পাশাপাশি কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট লোকসানের পরিমাণও বেড়েছে। কোম্পানিটির সর্বশেষ নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

তথ্যমতে, সমাপ্ত হিসাব বছরে রিজেন্ট টেক্সটাইলের আয় হয়েছে ১১০ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। যেখানে আগের হিসাব বছরে আয় ছিল ৮৬ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির আয় বেড়েছে প্রায় ২৫ কোটি টাকা বা ২৮ দশমিক ৭৪ শতাংশ।

অন্যদিকে আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট লোকসান হয়েছে ২০ কোটি ৮০ লাখ টাকার বেশি। যেখানে আগের হিসাব বছরে লোকসান ছিল প্রায় ৪ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির লোকসান বেড়েছে প্রায় ১৭ কোটি টাকা।



Source link