রাউজানে বিদ্যুৎ খুঁটির সাথে অটোরিকশার ধাক্কা স্কুল ছাত্রের অবস্থা আশঙ্কাজনক!

0
522

এম বেলাল উদ্দিন, রাউজান থেকে
রাউজানে বিদ্যুৎ খুঁটির সাথে একটি সিএনজি চালিত অটোরিক্সার ধাক্কা লেগে স্কুলছাত্র সহ ৩ জন আহত হয়েছেন। ৫ ফেব্রæয়ারী বুধবার বিকাল ৩টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের আমিরহাট হযরত এয়াছিনশাহ সড়কের ভট্টপাড়া এলাকার ভাগ্যধন মাষ্টারের ঘরের সামনে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও আহতদের স্বজনরা জানান, আমিরহাট বাজার থেকে (চট্টগ্রাম-থ-১২-৪২৮৫) নম্বরের সিএনজি অটোরিক্সাটি যাত্রী নিয়ে কয়েকশ গজ যেতেই সড়কের বাম পাশে রাস্তার উপর থাকা বিদ্যুৎ খুটির সাথে ধাক্কা দেয়। এতে গাড়ির যাত্রী আমিরহাট ট্যালেন্ট প্লাস কেজি স্কুলের ৪র্থ শ্রেনীর ছাত্র তানভীর (১০) গুরতর আহত হন। শিশু ছেলেটির বাবার নাম আজিজুল হক। সে আমিরহাট বাজারের সবজি বিক্রেতা হন। এছাড়া অপর যাত্রী এয়াছিন্নগর মোহন তালুকদার বাড়ীর ফজল হকের পুত্র ইউনুচ মিয়া (৬০) ও মজাহারুল হক (৬৫) আহত হন।
জানাগেছে স্থানিয়রা ৩ জনকে উদ্ধার করে গহরিা জেকে মেডিকেলে নিয়ে গেলে শিশু ছাত্র তানভীরের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় তাকে চমেকে প্রেরণ করে। তার মাথা ও বুকে প্রচন্ড আঘাত লেগেছে বলে চমেকের জরুরী বিভাগের এক ডাক্তার নিশ্চিত করেছেন। অপর আহত ২ বৃদ্ধের মুখ ও দাতে প্রচন্ড আঘাত হয়েছে, তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
এদিকে আহত স্কুল ছাত্রের পিতা আজিজুল হক বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে চমেক থেকে মুঠোফোনে জানান, ছেলের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে ডাক্তাররা বারবার বলছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, চৌধুরী বটতল স্টেশনের ড্রাইভার রহমত আলীর ছেলে গাড়িটি পিতার পরিবর্তে চালাচ্ছিল। তার অদক্ষতা ও কামখেয়ালীর কারনে খুটির সাথে ধাক্কালেগে মারাত্মক দুর্ঘটনাটি ঘটে। এতে গাড়িটির সামনের অংশের ডান সাইড, লাইট ও বডির মারাত্বক ক্ষতি সাধিত হয়।
গাড়িটির মালিক মুহাম্মদ ইদ্রিস বলেন, আমি গাড়ি দিয়েছি রহমতকে সে দিয়েছে তার ছেলেকে, এ দূর্ঘটনার সব দায় দায়িত্ব রহমত আলীকে নিতে হবে। গাড়িটি উদ্ধার করে আমিরহাট পশ্চিম ডাবুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে রাখা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে