যে কৌশলে ঢুকে পড়ছে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেট ও মাদক, টার্গেট বাংলাদেশ

ক্রাইম প্রতিবেদকঃ ক্রেতাদের ওষুধগুলো বিশ্বাসযোগ্য করতে বিক্রি করা হচ্ছে নামীদামি মার্কেট ও ফার্মেসিতে। অথচ একে পুরোপুরি নিষিদ্ধ বলছে ওষুধ প্রশাসন। পরিচিত মার্কেট হওয়ায় পুলিশের নজরদারিও তেমন নেই।

এ সুযোগকে-ই কাজে লাগাচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। কসমেটিকসের আড়ালে তথাকথিত নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় চলে এ উত্তেজক বড়ির রমরমা ব্যবসা।

!-- Composite Start -->
Loading...

বিদেশি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন দিয়ে কুরিয়ার সার্ভিসে বিক্রি হচ্ছে যৌন উত্তেজক ওষুধ। কোনো রেজিস্ট্রেশন নেই। নেই প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের ঠিকানাও।

এ ধরণের ব্যবসাকে পুরোপুরি অবৈধ বলছে ওষুধ প্রশাসন। তাই বিজ্ঞাপন বন্ধ করতে বিদেশি চ্যানেলগুলোকে কিভাবে নিয়ন্ত্রণে আনা যায় তার উপায় নিয়ে ভাবছেন কর্তারা।

নীল ছবির এক তারকা প্রতিরাতে-ই ভিনদেশি টিভি চ্যানেলে হাজির হন পুরুষদের এমন বাল্যশিক্ষার পাঠ পড়াতে! ভারতের কয়েকটি টিভি চ্যানেলের চাঙ্কে প্রতিদিন এ ধরণের বিজ্ঞাপন প্রচার হচ্ছে। যা এ দেশেও অবাধে দেখা যাচ্ছে। বিজ্ঞাপন চলে প্রতিবেশী দেশের টিভি চ্যানেলে অথচ টার্গেট বাংলাদেশের দর্শক!

এতে অবশ্য কাজও হচ্ছে। মানহীন পণ্যের বড় বাজার তৈরি হচ্ছে বাংলাদেশে। রাজধানীর পান্থপথে এমন-ই এক মার্কেট। দোকানের ভেতর বিশেষভাবে আটকানো বক্সে পাওয়া গেলো ওষুধের ভাণ্ডার।

এখানে চকবাজারে তৈরি অবৈধ ওষুধের পাশাপাশি কাস্টমস ফাঁকি দিয়ে আসা থাইল্যান্ড-সিঙ্গাপুরের ওষুধও পাওয়া যায়। এমন একটি চক্র, চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে ধরা পড়ে শুল্ক গোয়েন্দাদের ফাঁদে।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.