ম্যানুফ্যাকচারিংয়ে ডিফেক্ট আর সেটাই এই iPhone-কে করে তুলেছে মহামূল্যবান! কাণ্ডটা ধরতে পারছেন?

21


iPhone 11 Pro: ফ্যাক্টরি ডিফেক্ট বলে একটা কথা প্রচলিত আছে কেনাকাটার জগতে। এই ফ্যাক্টরি ডিফেক্টের আওতায় বেশির ভাগ সময়েই ব্র্যান্ডের লোগো নিয়ে সমস্যা হয়। যেমন, ধরে নেওয়া যাক একটা জামায় সেই ব্র্যান্ডের লোগো ঠিকঠাক ভাবে বসেনি। এ ক্ষেত্রে ওই জামাটা কিন্তু বিক্রির জন্য বাজারে ছাড়া হবে না। ওটা আলাদা করে বিশেষ কোনও আউটলেটে ওই ফ্যাক্টরি ডিফেক্টের আওতায় পাওয়া যাবে কম দামে। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে এই এক ঘটনা যদি iPhone-এর ক্ষেত্রে ঘটে, তা হলে তার দাম কমার বদলে উল্টে বেড়ে যাবে। ওই ডিফেক্টের জন্যই মডেলটা তখন হয়ে উঠবে বিরল! ঠিক যেমনটা সম্প্রতি হয়েছে এক iPhone 11 Pro মডেলকে ঘিরে।

ইন্টারনাল আর্কাইভের করা এক ট্যুইট থেকে সম্প্রতি এই বিষয়টা প্রকাশ্যে এসেছে। জানা গিয়েছে যে iPhone 11 Pro-র এই মডেলটা বিক্রি হয়েছে ২,৭০০ ডলারে। ভারতীয় মুদ্রায় যার দাম ২ লক্ষ টাকার সামান্য বেশি। জানা গিয়েছে যে এই iPhone 11 Pro মডেলটির লোগোতে ডিফেক্ট রয়েছে। সাধারণত মডেলের পিছন দিকে একেবারে মাঝখান করে Apple-এর লোগো বসানো থাকে। কিন্তু ঠাহর করে দেখলে বোঝা যাচ্ছে যে এ ক্ষেত্রে লোগোটি ডানদিকে খুব সামান্য সরে এসেছে। আচমকা দেখলে এই তফাত ধরা বেশ মুশকিল!

আর এখান থেকেই এই iPhone 11 Pro মডেলের বিক্রি ঘিরে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এই যে Apple-এর তৈরি জিনিসের দাম এত বেশি হয়, সেটা কিন্তু এমনি এমনি নয়। তৈরির শুরু থেকে প্যাকেজিংয়ের শেষ পর্যন্ত প্রতিটি ধাপে অভিজ্ঞ কর্মীরা প্রতিটি পণ্যকে যাচাই করে দেখেন, একমাত্র তার পরেই সেটা বাজারে বিক্রির সিলমোহর পায়। এ ক্ষেত্রে এই লোগোর ডিফেক্ট কী ভাবে চোখ এড়িয়ে গেল, সেটা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। অনেকে বলছেন যে, এই সামান্য প্রমাদের জন্যই মডেলটি বিরল, মালিক চাইলে বিশ্ববাজারে তা আকাশছোঁওয়া দামে নিলাম করতে পারেন!

অন্য দিকে আবার এই খবরের সত্যতা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। এই iPhone 11 Pro মডেল কোথায় বিক্রি হয়েছে, কে তা কিনেছেন- এই সব গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলোর কোনওটাই উঠে আসেনি ইন্টারনাল আর্কাইভের ট্যুইটে। ফলে খবর বিশ্বাসযোগ্য কি না, তা নিয়েও বিতর্ক জারি রয়েছে বিশেষজ্ঞ মহলে। যদিও এই প্রথম Apple-এর কারখানা থেকে এমন ডিফেক্টেড পণ্য বিক্রি হয়নি। এর আগে ২০১৫ সালে এমনই বিরল এক iPad Pro বিক্রি হয়েছিল। 9to5Mac.com-এর খবর অনুযায়ী এ ক্ষেত্রে গোল্ড টাচ আইডি রিং এবং সিলভার ব্যাক মডেলটিকে দুষ্প্রাপ্যের তালিকাভুক্ত করে।





Source link