মোদী নিজের স্ত্রীকে দেখেন না, সে পরিবার সম্পর্কে কি বুঝবেন, সে নাকি রাষ্ট্র চালাবেঃ মমতার হুঙ্কার

রিতিশ পান্ডে, কলকাতা ডেস্ক: রাজনৈতিক ইস্যুতেই এবার ব্যক্তিগত আক্রমণ। কোচবিহারে রবিবার যে মাঠে জনসভা করেছেন নরেন্দ্র মোদী সেই রাসমেলা ময়দান থেকেই সোমবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির ধর্ম-রাজনীতি নিয়ে আক্রমণ শানালেন। তার সূত্র ধরেই টেনে আনলেন নরেন্দ্র মোদীর পারিবারিক প্রসঙ্গ। মোদীর উদ্দেশে মমতা বলেন, “নিজের পরিবারকে কখনও দেখেছেন? অন্যকে না, নিজের স্ত্রীকে? আপনি কী করে জানবেন ঘরের মেয়েদের কথা, ঘরের বোনেদের কথা, ঘরের মায়েদের কথা, ঘরের স্বামীদের কথা?”

সোমবার বক্তব্যের গোড়া থেকেই আক্রমণাত্মক ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সরাসরি প্রধানমন্ত্রী মিথ্যা বলছেন বলে ইস্যু ধরে ধরে আক্রমণ করেন তৃণমূলনেত্রী। সেই প্রসঙ্গেই বিজেপির বিরুদ্ধে ধর্ম নিয়ে রাজনীতির অভিযোগ তোলেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে সেই অভিযোগ নতুন নয়। কিন্তু তাতেই নয়া সংযোজন হল মোদীকে পরিবার নিয়ে খোঁচা।

!-- Composite Start -->
Loading...

সব ধর্ম নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের এক সঙ্গে থাকার ভাবনা তুলে ধরতেই মমতা বলেন, “একটা ঘরে মা যেমন থাকে, বাবাও থাকে, ভাইও থাকে, বোনও থাকে, ছেলেও থাকে, ছেলের বউও থাকে, বাচ্চাও থাকে, বড়ও থাকে, কাকাও থাকে, কাকিও থাকে, জ্যাঠাও থাকে, জ্যেঠিও থাকে। এটাই তো সংসার। তেমন করে সব ধর্ম নিয়েও একটা পরিবার।”

এর পরেই মোদীর বিরুদ্ধে পরিবার না বোঝার অভিযোগ তোলেন মমতা। বলেন, “আপনি জানবেন কী করে পরিবারের কথা? একটা মানুষের পরিবার আর একটা জনগণের পরিবার, দেশের পরিবার। আপনার তো দুটোর মধ্যে একটাও নেই।”

নরেন্দ্র মোদীর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে অতীতেও অনেক প্রশ্ন উঠেছে। গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময়ে নিজের স্ত্রীর কথা সরকারি ভাবে জানাননি মোদী। ২০১৪ সালে লোকসভায় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময়ে স্ত্রী যশোদাবেনের নাম উল্লেখ করেন নির্বাচন কমিশনকে দেওয়া হলফনামায়। খুব কম বয়সে পারিবারিক ইচ্ছায় বিয়ে হলেও নরেন্দ্র মোদী কখনও যশোদাবেনের সঙ্গে সংসার করেননি বলে বিজেপির পক্ষে জানানো হয়। ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনের সময়ে এই প্রসঙ্গে বিভিন্ন মহলে নানা আলোচনা হলেও প্রধানমন্ত্রী মুখ খোলেননি।

২০১৯-এর নির্বাচনেও উঠে এল যশোদাবেন প্রসঙ্গ। কোচবিহার থেকে নরেন্দ্র মোদীর উদ্দেশে প্রশ্ন ছুঁড়লেন মমতা– “নিজের পরিবারকে কখনও দেখেছেন? অন্যকে না, নিজের স্ত্রীকে?” এখানেই না থেমে মমতার আরও অভিযোগ, “এঁরা যাঁরা সংসার মানে না, এঁরা যাঁরা পরিবার মানে না, এঁরা যাঁরা দেশ মানে না।”

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.