‘মানবিক চিকিৎসক’ সন্দীপন দাশ আর নেই

119


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম ব্যুরো: চট্টগ্রামের ‘মানবিক চিকিৎসক’ হিসেবে সুপরিচিত সন্দীপন দাশ মারা গেছেন। প্রগতিশীল-গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সবসময় সোচ্চার থাকা এই চিকিৎসকের মৃত্যুতে চট্টগ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সোমবার (১৬ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নগরীর বেসরকারি ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ডা. সন্দীপন দাশ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের হৃদরোগ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

ইম্পেরিয়াল হাসপাতালের অ্যাকাডেমিক কো-অর্ডিনেটর ডা. এ কে এম আরিফ উদ্দিন জানিয়েছেন, কিডনি সমস্যা, শরীরে সোডিয়ামের ঘাটতি, মস্তিষ্কের স্নায়ুর কার্যকারিতা হ্রাস, ডায়াবেটিসহ নানা জটিলতায় ভুগছিলেন সন্দীপন। গতকাল রোববার পেটে ব্যাথা নিয়ে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসা শুরুর পর মাল্টি অর্গান ফেইলিউরের কারণে তিনি মারা যান।

এর আগে গতবছর করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে সন্দীপন দাশ প্রায় মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসেন। এরপর তার শারীরিক জটিলতা আরও বাড়ে বলে জানিয়েছেন সহকর্মীরা।

৫২ বছর বয়সী সন্দীপনের স্ত্রীও একজন চিকিৎসক। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে, বাবা-মা রেখে গেছেন।

ছাত্রজীবনে ছাত্র ইউনিয়নের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন সন্দীপন। প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন, বেহালা বাজাতেন। চট্টগ্রামের প্রগতিশীল-গণতান্ত্রিক আন্দোলনে সরব ছিলেন তিনি।

সহকর্মীরা জানিয়েছেন, সন্দীপন দাশ সাধারণত গরীব-অসহায় রোগীদের বিনামূল্যে চিকিৎসা দিতেন। পথে-পথে ঘুরে ভাসমান অসুস্থ লোকজনকে চিকিৎসা দিতেন। আবার গুরুতর অসুস্থ কাউকে পেলে নিজের গাড়িতে তুলে হাসপাতালে নিয়ে যেতেন। এমন অসংখ্য কাজের জন্য চট্টগ্রামে তিনি মানবিক চিকিৎসক হিসেবে পরিচিত ছিলেন।

সারাবাংলা/আরডি/এনএস





Source link