মমতার নির্বাচনী প্রচারণায় নিষেধাজ্ঞা জারি

0
78

কলকাতা, ১২ এপ্রিল – নির্বাচন কমিশন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী প্রচারণায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ফলে আগামী ২৪ ঘণ্টা নির্বাচনী প্রচার করতে পারবেন না তিনি। সোমবার সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশন এই তথ্য জানিয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, তৃণমূলনেত্রীর একাধিক মন্তব্যকে নির্বাচনী বিধিভঙ্গ হিসেবে গণ্য করেছে কমিশন। তার জেরেই এই সিদ্ধান্ত। এই নিষেধাজ্ঞার জেরে তৃণমূলনেত্রী সোমবার রাত ৮ টা থেকে মঙ্গলবার রাত ৮টা পর্যন্ত প্রচার করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন : ‘৪ দফাতেই বিজেপির সেঞ্চুরি, বুঝেই রেগে যাচ্ছেন দিদি’, বর্ধমানের সভায় আত্মবিশ্বাসী মোদি

এদিকে, কমিশনের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব। টুইটারে দলীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন বলেন, ‘১২ তারিখ গণতন্ত্রের কালো দিন।’

আগামী ১৭ তারিখ পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চম দফার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তার আগেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ২৪ ঘণ্টার জন্য প্রচার নিষিদ্ধ হওয়ার সিদ্ধান্ত যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে সংশ্লিষ্টরা।

কমিশনের জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, সম্প্রতি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দু’টি মন্তব্যকে কেন্দ্র করে বিতর্ক দানা বাঁধে। একটি মন্তব্য ছিল, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ভোট সংক্রান্ত, অপর মন্তব্যটি ছিল কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও প্রসঙ্গে। তার এই দুই মন্তব্যের জেরে রাজ্যের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও শান্তি বিঘ্নিত হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছিলেন বিরোধীরা। এর পরই গত ৭ এপ্রিল তৃণমূলনেত্রীকে শোকজ করে কমিশন। গত শুক্রবার সেই শোকজের জবাব দিয়েছিলেন মমতা। কিন্তু সেই জবাবে সন্তুষ্ট নয় কমিশন। নির্বাচন কমিশনের দাবি, শোকজের বাছাই করা অংশের জবাব দিয়েছিলেন তিনি। কমিশন যা জানতে চেয়েছে, তার সরাসরি জবাব দেননি মমতা। জবাবে সন্তুষ্ট না হওয়ায় কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করল কমিশন।

কমিশনের এই সিদ্ধান্তকে বেনজির বলে দাবি করেছে ওয়াকিবহাল মহল। তবে এই সিদ্ধান্তের জেরে তৃণমূলের ক্ষতি হল নাকি লাভই হল, সেই বিতর্ক অবশ্য থেকেই যাচ্ছে।

এন এইচ, ১২ এপ্রিল

Source link