মওলানা ভাসানী এক মহীরুহের অগ্নিক্ষরা সংগ্রামী জীবন : মোস্তফা

0
227

স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানী জাতির সঙ্গে কিংবা মেহনতি জনগণের সঙ্গে কখনোই বেইমানি করেননি বলে মন্তব্য করে বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, এক মহীরুহের অগ্নিক্ষরা সংগ্রামী জীবন।

তিনি বলেন, মওলানা ভাসানী এই জাতিকে সারা জীবন শুধু দিয়েই গেছেন, কিছুই নেননি। লোভের কাছে কখনোই পরাস্ত হননি। স্বাধীনতার এই অন্যতম রূপকারকে ‘স্বাধীনতার স্বপ্নদ্রষ্টা’ বা ‘রোল মডেল’ হিসেবে স্বীকৃতি প্রদানের সুযোগ এখনো আছে।

বুধবার (২২ জানুয়ারী) নয়াপল্টনের যাদু মিযা মিলনায়তনে মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, এ অঞ্চলের মানুষের মেহনতি-শ্রমজীবী, নির্যাতিত-নিপীড়িত মানুষের কান্ডারি, শোষণ-বঞ্চনার বিরুদ্ধে আমৃত্যু আপসহীন সংগ্রামী জননেতা হচ্ছেন মওলানা ভাসানী। তার অসীম সাহস আর নির্ভীক চেতনালব্ধ রাজনীতি আতঙ্কিত করেছিল স্থানীয় সামন্তদের যেমন, তেমনি সাম্রাজ্যবাদী চক্রকেও। পুঁজিবাদ-সা¤্রাজ্যবাদবিরোধী আপসহীন তার সংগ্রাম আমত্যু সক্রিয় ছিল। কখনো ছন্দপতন ঘটেনি। জনগণের মুক্তি সংগ্রামে সারাজীবন অকুুতোভয় মওলানা ভাসানী। কখনো বিচ্যুত হননি। আত্মসমপর্ণও করেননি। অবিচল ছিলেন মেহনতি মানুষের মুক্তির সংগ্রামে।

ন্যাপ মহাসচিব বলেন, গণতান্ত্রিক ধারার রাজনীতিতে বুর্জোয়া নেতারা যে দেশের আপামর কৃষক-শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির বিষয়টি নিয়ে তাদের শ্রেণিস্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠতে পারবে; তা মওলানা ভাসানী মনে করতেন না। সে কারণেই এই উপমহাদেশের প্রথাগত ক্ষমতার রাজনীতি কোনো দিনই তাঁকে অনুপ্রাণিত করতে পারেনি। গ্রাম-গঞ্জের কৃষককুল কিংবা শহর-নগরের ব্যাপক শ্রমিক শ্রেণি ও অন্যান্য মেহনতি মানুষের অর্থনৈতিক অধিকার নিশ্চিত করার জন্য এ দেশের প্রেক্ষাপটে তিনি অনেক পথের সন্ধান করেছেন। ‘কৃষক-শ্রমিক ও মেহনতি মানুষের রাজ’ প্রতিষ্ঠার কথা বলেছেন।

তিনি বলেন, তার রাজনৈতিক জীবন বর্তমান প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা জরুরি। কেননা আগামী প্রজন্মের পক্ষেই সম্ভব ভাসানীর আজন্ম আকাংক্ষিত শ্রেণিহীন-বৈষম্যহীন, শোষণমুক্ত সমাজ ও রাষ্ট্র গঠনের সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। তরুণরাই তো আমাদের ভরসার কেন্দ্র। তাদের প্রতিই আমাদের সব প্রত্যাশা।

ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া’র সভাপতিত্বে ও ঢাকা মহানগর সভাপতি মো. শহীদুননবী ডাবলু’র সঞ্চালানায় আলোচনায় অংশগ্রহন করেন জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ সভাপতি এম.এ. জলিল, এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, বাংলাদেশ জাসদ নেতা মো. শাহাবুদ্দিন, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল ভুইযা, যুব নেতা বাহাদুর শামিম আহমেদ পিন্টু প্রমুখ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে