ভ্যাকসিন নেওয়ার পর যে কারণে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়

956


লাইফস্টাইল ডেস্ক

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন নেওয়ার পর বেশিরভাগ মানুষের মধ্যেই মাথাব্যাথা, জ্বর, অবসন্নতা ইত্যাদি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এগুলো ভ্যাকসিনের সাধারণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এবং এসব লক্ষণের মাধ্যমে বোঝা যায় শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হচ্ছে। আবার অনেকেরই ভ্যাকসিন নেওয়ার পর কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হচ্ছে না। স্বাভাবিক থাকছেন। তার মানে কি ভ্যাকসিন তার শরীরে কাজ করছে না? চলুন জেনে নেওয়া যাক, ভ্যাকসিন নেওয়ার পর শরীরে কি ঘটে, কেনই বা একেকজনের মধ্যে একেক ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

ভ্যাকসিন নেয়ার পর শরীরে যা ঘটে
আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রধানত দুইটি অংশে বিভক্ত হয়ে কাজ করে। এর মধ্যে শরীরে বাইরে থেকে প্রবেশ করা কোনোকিছুর উপস্থিতি শনাক্ত হওয়ামাত্রই প্রথম অংশ কাজ শুরু করে দেয়। শ্বেত রক্তকণিকাগুলো তাৎক্ষণিকভাবে সেখানে ছড়িয়ে পড়ে এবং প্রদাহ বা জ্বালাপোড়া শুরু হয়। এ কারণেই ঠান্ডা লাগা, জ্বর, ক্লান্তি, হতাশা এবং অন্যান্য পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়ে থাকে।

তাৎক্ষণিক এই রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বয়সের সঙ্গে সঙ্গে কমে যেতে থাকে। যে কারণে ভ্যাকসিন নেওয়ার পর তরুণদের মাঝে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বেশি দেখা যাচ্ছে। আবার কিছু ভ্যাকসিনে স্বাভাবিকভাবেই অন্যান্যগুলোর চাইতে বেশি পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়।

আবার ভ্যাকসিন নেওয়ার পর একেকজনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া একেকরকম হয়ে থাকে। অনেকের কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে না। তবে তার মানে এই নয় যে ভ্যাকসিন তার শরীরে কাজ করছে না।

ব্যতিক্রম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া
ভ্যাকসিন নেওয়ার পর যেহেতু রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হওয়া শুরু হয়, তাই এই সময় শরীরের কিছু জায়গা ফুলে যেতে পারে। যেমন, বগলে ফুলে যেতে পারে। নারীদের ক্ষেত্রে এটি অনেকে ক্যান্সার বা টিউমার বলে ভুল করতে পারেন। তাই করোনার টিকা নেওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিয়মিত চেক-আপ করে নেওয়া ভালো।

এসব পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আবার সবার ক্ষেত্রে নাও হতে পারে। কিন্তু সারাবিশ্বে শত শত মিলিয়ন ডোজ ভ্যাকসিন দেয়া ও সুক্ষ্ম পর্যবেক্ষণের পর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ঝুঁকি চিহ্নিত করা হয়েছে। অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও জনসন অ্যান্ড জনসনের টিকা নেওয়ার পর খুব অল্পকিছু মানুষ তাদের শরীরে অস্বাভাবিক ধরনের রক্তজমাট বাঁধার কথা জানিয়েছেন। যদিও কিছু দেশ বয়স্ক ব্যক্তিদের এই টিকার বাইরে রেখেছে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ বলছে, এসব ঝুঁকির চাইতে টিকা নেওয়ার উপকারিতাই বেশি।

ভ্যাকসিন নেওয়ার পর কিছু মানুষের মধ্যে অ্যালার্জির সমস্যাও দেখা দিচ্ছে। এ কারণে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন গ্রহণের পর অন্তত ১৫ মিনিট টিকাকেন্দ্রে অবস্থানের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। যাতে কেরে গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হলে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হয়।

সূত্র: এপি নিউজ

সারাবাংলা/এসএসএস





Source link