‘ভারতে মুসলিম নির্যাতন বন্ধে জাতিসংঘকে পদক্ষেপ নিতে হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভারতে মুসলিম নির্যাতন বন্ধে জাতিসংঘের মাধ্যমে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে চরমোনাই পীরের ছাত্র সংগঠন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন।

মঙ্গলবার বিকালে ভারতসহ উপমহাদেশে সাম্প্রদায়িক অপশক্তির উত্থান ও মুসলিম নিধন এবং বরগুনায় রিফাত হত্যাসহ দেশব্যাপী চলমান হত্যাযজ্ঞের প্রতিবাদে জাতীয় প্রেসক্লাব চত্বরে এক মানববন্ধন থেকে এ দাবি জানানো হয়।

!-- Composite Start -->
Loading...

মানববন্ধনে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি শেখ ফজলুল করীম মারুফ বলেন, ভারতে হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপি টানা দ্বিতীয়বারের সরকার গঠনের পর দেশটিতে মুসলিমদের ওপর নির্যাতনের মাত্রা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। বিভিন্ন রাজ্যে কোনো কারণ ছাড়াই মুসলিমদের ওপর হামলা ও হত্যার ঘটনা নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তিনি বলেন, এখনই সাম্প্রদায়িক উস্কানীমূলক এমন কার্যক্রম বন্ধ করা না হলে তাদের ঔদ্ধত্বপূর্ণ আচরণ দিনদিন বাড়তেই থাকবে। মুসলিম প্রধান বাংলাদেশ সরকারের উচিত পারস্পরির আলোচনা এবং জাতিসংঘের হস্তক্ষেপের মাধ্যমে এ বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া।
সংগঠনের সেক্রেটারি জেনারেল মুহাম্মাদ মুস্তাকিম বিল্লাহর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে উপস্থিত বক্তারা বলেন, সম্প্রতি ভারতে সংখ্যালঘু মুসলমানদের কোনো ধর্মীয় স্বাধীনতা নেই বলে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় যে রিপোর্ট দিয়েছে, ভারতীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় তা প্রত্যাখ্যান করেছে। অথচ তাদের অপকর্মের খবর বিশ্বের সবাই জানে।
বক্তারা আরও বলেন, ভারতে মুসলিম নির্যাতন বন্ধ না হলে বিশ্বব্যাপী মুসলমানরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভারতের বিরুদ্ধে সংগ্রামে অবতীর্ণ হতে বাধ্য হবে।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন ইশা ছাত্র আন্দোলনের জয়েন্ট সেক্রেটারি জেনারেল নূরুল করীম আকরাম, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আব্দুজ্জাহের আরেফী, কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক শেখ মুহাম্মাদ আল-আমিন, কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুল জলিল, কেন্দ্রীয় পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক, শরিফুল ইসলাম রিয়াদ, কেন্দ্রীয় আলিয়া মাদরাসা সম্পাদক সাইফ মুহাম্মাদ সালমান ও কেন্দ্রীয় প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় সম্পাদক, মাহমুদুল হাসানসহ নেতৃবৃন্দ।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.