বেরোবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীকে কুপিয়ে জখম: গ্রেফতার ১

97


ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট

রংপুর: রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীকে চাপাতি দিয়ে জখম করে ছিনতাইয়ের ঘটনার মূল হোতা রিফাত হোসেন আলিফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ ছাড়া শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর ছিনতাই করা দুটো মোবাইল ফোন, ছিনতাইয়ে ব্যবহার করা চাপাতিসহ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। পৃথক দুই ছিনতাইয়ের সঙ্গে জড়িত আরও দুজনকে গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে পুলিশ।

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের করা এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ সব তথ্য জানানো হয়।

ব্রিফিংয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (অপরাধ) আবু মারুফ হোসেন বলেন, শুক্রবার রাত আড়াইটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের জেন্ডার এন্ড ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থী শাহরিয়ার সিদ্দিক পরাগকে আলিফসহ আরও দুজন অজ্ঞাত ব্যক্তি পথরোধ করে। তারা মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে এতে পরাগ বাধা দেয়। এ সময় ছিনতাইকারীরা চাপাতি দিয়ে পরাগকে জখম করে। পরে ভোর সাড়ে ৫টায় ছিনতাইকারী আলিফসহ আরও একজন মিলে নগরীর কারমাইকেল কলেজিয়েট স্কুলের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস ও প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মনিরুজ্জামানকে চাপাতি দিয়ে জখম করে মোবাইল ও টাকা নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টরের করা মামলায় গতকাল বিকেলে আলিফকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এমন পরিস্থিতিতে রংপুর মেট্রোপলিটন এলাকায় পুলিশের টহল আরও জোরদার করার উদ্যোগের করার কথা জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

ঘটনার ঘটার অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে মূল হোতাকে গ্রেফতারের ঘটনায় পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় নিরাপত্তা জোরদারের অনুরোধ জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর সৈয়দ আনোয়ারুল আজিম।

উল্লেখ্য, চাপাতির আঘাতে জখম শিক্ষার্থী শাহরিয়ার সিদ্দিক পরাগ বর্তমানে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এবং শিক্ষক মনিরুজ্জামান রংপুর মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন।

সারাবাংলা/একে





Source link