বিল গেটস, ওবামাসহ প্রভাবশালীদের টুইটার হ্যাকিংয়ের মাস্টারমাইন্ড এই বালক!

0
317


evan clock

বিগত কিছু দিন ধরেই বিটকয়েন কেলেঙ্কারিতে সরগরম টুইটার। হ্যাকারদের হাতের নাগালে চলে এসেছিল প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, ডেমোক্র্যাটিক প্রেসিডেন্ট মনোনীত প্রার্থী জো বাইডেন-সহ অ্যামাজনের সিইও জেফ বেজস, কিম কার্দাশিয়ান, এলন মাস্ক, এমনকী বিল গেটসের মতো দুনিয়ার ১৩০জন প্রভাবশালী ব্যক্তির টুইটার অ্যাকাউন্ট।

বিশ্বজুড়ে প্রশ্ন উঠেছিল ট্যুইটারের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে। চাঞ্চল্য সৃষ্টিকারী সেই ঘটনার তদন্তে উঠে এল ১৭ বছরের এক কিশোরের নাম।

হ্যাঁ বিষয়টি সত্যিই অবাক করার মতোই। বিশ্বজুড়ে হইহই রব ফেলে দেয়া টুইটারের বিটকয়েন কেলেঙ্কারির মাস্টারমাইন্ড আসলে ১৭ বছরের এক কিশোর। ট্যুইটারের তরফে জানানো হয়েছে যে, সেই কিশোরের নাম গ্রাহাম ইভান ক্লার্ক। এই গ্রাহাম ইভান ক্লার্কের সঙ্গে ঘটনায় জড়িত রয়েছে আরও দুজন। তাদের একজনের নাম নিমা ফাজেলি, বয়স ২২। অপরজন ম্যাসন শেপার্ড, বয়স ১৯।

কিছু দিন আগেই প্রভাবশালী ব্যক্তিদের টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার ঘটনায় ফেডারাল অথোরিটিজ এই ১৭ বছরের কিশোর ক্লার্ককে ট্র্যাক করেছিল। তার বিরুদ্ধে জালিয়াতি মামলা রুজু করা হয়েছে। সেই গ্রাহাম ইভান ক্লার্ককে এই মুহূর্তে জিজ্ঞাসাবাদও করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, হ্যাকিংয়ের কাজে বিগত কিছু বছর ধরেই কাঁচা হাত পাকা করে ফেলেছে ১৭ বছরের ওই কিশোর। আর টুইটার হ্যাকিং শুরু করতে না করতেই সোজা তার হাতে চলে আসে বিশ্বের প্রথম সারির কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিদের অ্যাকাউন্টের যাবতীয় তথ্য। চলতি বছরের এপ্রিল মাসেই একটি সিক্রেট এজেন্সি প্রায় ৭ লক্ষ মার্কিন ডলার বিটকয়েন সিজ করে দিয়েছিল।

তদন্তকারীরা মনে করছেন, হ্যাকিং থেকেই এই বিপুল পরিমাণ অর্থ রোজগার করেছিল গ্রাহাম ইভান ক্লার্ক।
আর তারপর ১৫ এপ্রিলই জেফ বেজস থেকে শুরু করে ব্যারাক ওবামা বিল গেটসদের টুইটার অ্যাকাউন্ট হ্যাক হওয়ার ঘটনা সামনে আসে। আর এহেন প্রভাবশালী ব্যক্তিদের টুইটার প্রোফাইল হ্যাকিং করতে বিটকয়েনকেই হাতিয়ার করে ১৭ বছরের সেই মাস্টারমাইন্ড। বড় ফন্দি আঁটে সে! প্রথমে ৪৫টি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বিটকয়েন চেয়ে টুইট করা হয়। এরপরে ৩৬ জনের মেসেজ অ্যাকসেস করা হয়। আর শেষমেশ ৭ জন প্রভাবশালীর টুইটার প্রোফাইলের সমস্ত তথ্য ডাউনলোড করে নেয়া হয়।

প্রভাবশালী ব্যক্তিরা সবসময়ই হ্যাকারদের হিটলিস্টে থাকে। কারণ জালিয়াতি করার অন্যতম বিশেষ মাধ্যম হয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল। প্রভাবশালী ব্যক্তিদের উপরে মানুষের অগাধ আস্থা থাকে। জালিয়াতরা জানেন যে, প্রভাবশালীদের যে কোনও বার্তা মানুষের কাছে বিশ্বাসযোগ্যতা লাভ করে। আর সেই চিন্তাভাবনা থেকেই ১৭ বছরের গ্রাহাম ইভান ক্লার্ক সেই সব টুইটার প্রোফাইল হ্যাক করে।

প্রভাবশালী ব্যক্তিদের টুইটার প্রোফাইল থেকে প্রথমে বলা হয়, ইউজারেরা সেই সকল অ্যাকাউন্টে যত বেশি করে বিটকয়েন পাঠাবে, ঠিক তার ডাবল পরিমাণ ফেরতও পাবেন তাঁরা। করোনার সংক্রমণের টোপ দিয়েই মানুষকে সাহায্য করার নাম করে এই ফাঁদ পেতে বসে ১৭ বছরের ওই কিশোর এবং তার দুই সঙ্গী। – এই সময়



Source link

মতামত

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে