বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলে প্রার্থী পাওয়া যায় না

61


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নিলে প্রার্থী পাওয়া যায় না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

শুক্রবার (১১ জুন) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে জিয়াউর রহমানের ৪০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এগ্রিকালচারিস্টস’ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (অ্যাব) আয়োজিত ‘বাংলাদেশের কৃষি এবং শহীদ জিয়ার কৃষি বিপ্লব’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ৩০০ আসনের মধ্যে ১৫৩টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। আর বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলে এতো গুম, খুন, অত্যাচারের পরও আগের রাতে ভোট করে ফেলতে হয়। যদি মানুষকে ভোট দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়। এমনকি কয়েক ঘন্টাও যদি সুযোগ দেওয়া হয় তাহলেও তাদের জয়ী হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। তাই, এসব বুঝেই তারা আগেই ভোট করে ফেলে। তারা উন্নয়নের কথা বলে। তাদের উন্নয়নে যদি জনগণ খুশি হয় তাহলে তাদের এতো ভয় কিসের? প্রশাসন আর পুলিশ দিয়ে ভোট করতে হবে কেন?

নজরুল ইসলাম খান বলেন, জনগণকে মত প্রকাশের সুযোগ করে দিতে নির্দলীয় সরকারের অধীনেই সংসদ নির্বাচন দিতে হবে।

অবাধ নির্বাচনের দাবি জানিয়ে এই বিএনপি নেতা বলেন, ছেড়ে দেন সবকিছু। জনগণ আপনাদেরকে নির্বাচিত করবে যদি জনগণ খুশি থাকে। বিএনপি কখনো জোর করে ক্ষমতায় আসতে চায়নি। সামরিক শাসন করেনি। জরুরি অবস্থা করেনি। বরং গণতন্ত্র ফিরিয়ে এনেছে। জরুরি অবস্থা বাতিল করেছে বিএনপি। সামরিক শাসন প্রত্যাহার করেছে বিএনপি। কাজেই, তারা এখনো জানেন গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াতেই পরিবর্তন, ভোটের মাধ্যমেই পরিবর্তন করতে হবে। কারণ, বিএনপি গনতন্ত্রকে রক্ষা করতে জানে। তাই জনগণকে তার মত প্রকাশের সুযোগ করে দিতে হবে। আর যদি দেশে যথার্থ গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় এবং জনগনের কাছে দায়বদ্ধ ও জবাবদিহিতা করতে হয় তাহলেই এদেশের উন্নয়ন হবে।

তিনি বলেন, আজকের গণতন্ত্রের নেত্রী। এদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী। যিনি ২৩ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে প্রত্যেক আসনে বিজয়ী হয়েছিলেন। তিনি খালেদা জিয়া। স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনের আপসহীন নেত্রী। এদেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী। তাকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আবদ্ধ রাখা হয়েছে। ৭৬ বছর বয়সে বন্দি অবস্থায় অসুস্থ একইসঙ্গে, চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যাওয়ার প্রয়োজন হলেও তিনি যেতে পারবেন না এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে।

অবশ্য, যারা ভোটের পরোয়া করে না। তাদের এসবে কী যায় আসে? মনে রাখবেন, বাংলাদেশে এখনো বিএনপি আছে, বলেন নজরুল।

আলোচনা সভায় বিএনপি এবং দলটির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সারাবাংলা/এসজে/একেএম





Source link