বর্তমান সময়ে ফলোআপ!

0
281

ফলোআপ কি?
নেটওয়ার্ক মার্কেটিং ব্যবসায় মূলত ব্যক্তি থেকে ব্যক্তির মধ্যে আন্তব্যক্তিক সম্পর্ককে কাজে কাজে লাগিয়ে প্রোডাক্ট মার্কেটিং করা হয়ে থাকে। কোন ব্যক্তিকে পন্য সম্পর্কে তথ্য দেয়ার পর সরাররি পন্যটি ক্রয় করে এমন ব্যক্তির সংখ্যা সাধারনত ১৫-২০% হয়ে থাকে। বাকি ৮০-৮৫% ব্যক্তি পন্য সংক্রান্ত তথ্যসমূহ নিয়ে বাসায় বা তার কর্মস্থলে চলে যায়। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যেহেতু নেটওয়ার্ক মার্কেটিং বিষয়ক সচেতনতার অভাব খুব বেশি তাই অধিকাংশ ক্ষেত্রে আপনার অতিথির আশে পাশের শুভাকাঙ্খীরা যখন জানতে পারে যে, তিনি নেটওয়ার্ক মার্কেটিং কোম্পানী থেকে পন্য কেনার বা ব্যবসা করার অফার পেয়েছেন তখন তাকে অপরিপক্ক তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত করে ফেলতে পারে।
এধরনের পরিস্থিতি তৈরি হলে আপনার অতিথির সাথে পুনরায় যোগাযোগ করার প্রয়োজন পরবে। এবং তার বিভ্রান্তির কারন সম্পর্কে জেনে সেই মোতাবেক সঠিক তথ্য তাকে পৌছে দিতে হবে। আপনার অতিথি যখন দেখবে যে, আপনি লজিক্যাল এবং সঠিক তথ্য দিয়েছেন তখন তিনি আপনার প্রোডাক্ট এবং সিস্টেম এর উপর সন্তুষ্টচিত্তে প্রোডাক্ট ক্রয় করে কাজ শুরু করার সিদ্ধান্ত নিবেন। এই বিশেষ প্রক্রিয়াটি নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর ভাষায় ফলোআপ হিসেবে পরিচিত।
ফলোআপ এর আওতাভূক্ত কাজ সমূহ কি কি?
কোন একজন অতিথিকে ব্যবসা বা প্রোডাক্ট সম্পর্কে প্রথমবার তথ্য দেয়ার পর থেকে শুরু করে প্রোডাক্ট ক্রয় করে জয়েন করার পূর্বের সময়ে তার সাথে এক বা একাধিক বার যোগাযোগ করে তাকে কোম্পানী প্রোডাক্ট এবং আপনার অফার সম্পর্কে সঠিক তথ্য পৌছে দিয়ে জয়েনিং এর পূর্ণাঙ্গ সিদ্ধান্ত তৈরির ব্যপারে সহায়তা করতে যেয়ে যা যা করতে হয় তার সবই ফলোআপের অন্তর্ভূক্ত। সাধারনত কোন একজন অতিথিকে ৩-৫ বার ফলোআপ করতে পারলে সফলতার হার অনেক গুন বেড়ে যায়।
ফলোআপের পয়োজনীয়তাঃ
নেটওয়ার্ক মার্কেটিং ব্যবসা সম্পসারনের জন্য যে ৮ টি ধাপ সম্পর্কে বেসিক বিজনেস ম্যানেজমেন্ট ট্রেনিং এর ধারনা দেয়া হয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধাপ হচ্ছে ফলোআপ। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে দীর্ঘ ৭ বছরের নেটওয়ার্ক মার্কেটিং নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতার আলোকে বলতে পারি যে, আপনি ১০০ জন ব্যক্তিকে যদি পন্য বা ব্যবসা সম্পর্কে তথ্য দিয়ে থাকেন দেখবেন মাত্র ১৫-২০ জন ব্যক্তি ফলোআপ ছাড়াই অর্থাৎ আপনি তাকে প্রথমবার তথ্য দেয়ার পরপরই সে প্রোডা্ক্ট ক্রয় করে আপনার সাথে কাজ শুরু করবে। বাকি ৮০-৮৫ জন ব্যক্তিকে জয়েন করাতে হলে অবশ্যই ফলোআপ করতে হয়। তাই বুঝতেই পারছেন অল্প সময়ে নেটওয়ার্ক মার্কেটিং থেকে বড় রকমের সফলতা পেতে ফলোআপের কোন বিকল্প নাই।
ফলোআপ করার পূর্বে মূলত দুই ধরনের প্রস্তুতি গ্রহন করা দরকারঃ
১। ইন্টারনাল বা অভ্যন্তরীন প্রস্তুতি
২। এক্সটারনাল বা বাহ্যিক প্রস্তুতি
১। ইন্টারনাল বা অভ্যন্তরীন প্রস্তুতি
আপনি যে কোম্পানীতে কাজ করছেন সে কোম্পানী সম্পর্কে ভাল করে জানা থাকতে হবে।
আপনার কোম্পানী উপর পূর্ণ বিশ্বাস থাকতে হবে।
আপনি যে কাজটি করছেন তা নিজের এবং অন্যের জন্য উপকারী কি না পরিস্কার ধারনা থাকতে হবে।
আপনি যে সিস্টেমে (নেটওয়ার্ক মার্কেটিং) কাজ করছেন সে সিস্টেম টি যে ভাল তার উপর পূর্ণ আস্থা থাকতে হবে।
কাউকে ফলোআপ করার পূর্বে তার প্রয়োজন বা আগ্রহ কিসে তা ভাল করে জানা থাকা দরকার। বেশির ভাগ নতুন নেটওয়ার্কাররা তারা নিজে যেটা ভাল মনে করেন বা যাতে কমফোর্ট ফিল করেন অথবা যে প্রোডাক্ট পছন্দ করেন তা বিক্রয় করার চেস্টা করেন। অথচ ভাল ফলাফল পেতে চাইলে আপনার অতিথির পছন্দ বা চাওয়াকে গুরুত্ব দিলে পজিটিভ ফলাফল পাওয়ার সম্ভাবনা অনেক গুন বেরে যায়।
ফলোআপের জন্য আপনার নিজের, কোম্পানীর, সিস্টেম এবং প্রোডাক্ট এর উপর উচ্চমাত্রার কনফিডেন্স থাকা দরকার। মনে রাখবেন আপনার কনফিডেন্স এর উপর নির্ভর করে অতিথি জয়েন করার সিদ্ধান্ত নিবে।
বিঃদ্রঃ- মানুষের চাওয়া বা পছন্দ নির্ণয় করার জন্য ইনভাইট ট্রেনিং এ বর্নিত FORM সূত্র ব্যবহার করলে ভাল ফলাফল পাওয়া যেতে পারে।
২। এক্সটারনাল বা বাহ্যিক প্রস্তুতি
মার্কেটিং ব্যবসায় বাহ্যিক প্রস্তুতি অত্যন্ত গুরুত্ব পূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হয়। কেননা একটি বিখ্যাত প্রবাদ আছে মানুষ আগে দর্শনদারী তার পর গুন বিচারি। অর্থাৎ আপনার কোম্পানী এবং তার প্রোডাক্ট যত ভালই হোক না কেন, মানুষ প্রথমে আপনাকে দেখে কোম্পানী এবং প্রোডাক্ট সম্পর্কে প্রাথমিক ধারনা পোষণ করবে।
আপনার ড্রেসকোড হতে হবে প্রফেশনাল। মেয়েদের ক্ষেত্রে শালীন যে কোন পোশাক এবং ছেলেদের ক্ষেত্রে টাই পড়া উত্তম।
ক্লিন সেভড, চুল সুন্দর করে কাটা, এবং পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকা দরকার।
অবশ্যই আপনার মুখ যেন দু্র্গন্ধ মুক্ত হয়। যাদের দাতে কোন সমস্যার কারনে দুর্গন্ধ এড়ানো যাচ্ছে না তারা চুইংগাম বা চকোলেট খেয়ে নিতে পারেন।
আপনার সাথে একটি সুদর্শন ব্যাগ যার মধ্যে কাগজ, কলম, প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস থাকা ভাল। এটা আপনার প্রফেশনালিজম প্র্রকাশ করে। যার ফলে আপনার আলোচনা গুরুত্ব পায়।
ফলোআপের ধারাবাহিকতাঃ
অনেকেই ফলোআপ করতে গিয়ে সি নিজে যা যা জানে সবকিছু তার অতিথিকে জানাতে উদ্ধত হয়। তার ফলে দেখা যায় সে হয়তো অনেক সময় নিয়ে অতিথির সাথে আলোচনা করেছে কিন্তু অতিথি হয়তো তার জানার বা বিভ্রান্ত হওয়ার কারন সম্পর্কে পরিস্কার ধারনা পেলনা। তার ফলে অনেক নেটওয়ার্কারের নিজের কাছে মনে হয় যে, এত সময় নিয়ে আলোচনা করলাম মনোযোগ সহকারে শুনল কিন্তু প্রোডাক্ট ক্রয় করছে না কেন? সমস্যা টা কোথায়? আসলে আপনি ফলোআপের নিয়ম এবং ধারাবহিকতা সম্পূর্ণরূপে অনুসরন না করায় এমন পরিস্থিতির তৈরি হয়েছে।
উপরিউক্ত সমস্যার সমাধান হিসেবে একটি মডেল ফলোআপের ধারাবাহিকতা সম্পর্কে নিম্নে ধারনা দেয়া হলোঃ
১। পজিটিভ কথা দিয়ে আলোচনা শুরু করুন।
২। অতিথির কাছ থেকে প্রশ্ন সংগ্রহ করুন এবং একটি কাগজের উপরের ডান দিকের কর্নারে একে একে লিখে ফেলুন।
৩। খুবই সংক্ষিপ্ত আকারে ব্যবসায়ীক পরিকল্পনাটি পুনরায় তুলে ধরুন।
৪। সকল প্রশ্নের লজিক্যাল উত্তর একটি একটি করে যথা সম্ভব অল্প সময়ের মধ্যে ব্যখ্যা করুন।
৫। একাধিক ব্যবসায়ীক কেন্দ্র নিয়ে শুরু করার সুবিধা সমূহ তুলে ধরুন।
৬। আগে আসার সুবিধা সমূহ তুলে ধরুন এবং সাইন আপ করানোর চেষ্টা করুন।
৭। আলাচনার ফলাফল যাই হোক না কেন হাসি মুখে সুসম্পর্ক বজায় রেখে বিদায় নিয়ে চলু আসুন।
উপরিউক্ত সাতটি ধাপ অনুসরন করে ফলোআপ করলে আপনার অতিথির কাছে প্রোডাক্ট সেল করা অনেক সহজ হবে এবং সফলতার হার অনেক গুন বাড়াতে পারবেন বলে বিশ্বাস করি।

মতামত

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে