বকশীগঞ্জের মেরুরচর গ্রামবাসীকে ঘরে ফিরার আহবান

35

এমরান হোসেন, জামালপুর জেলা প্রতিনিধি ।।

গত ৫ জানুয়ারি জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার মেরুরচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সহিংসতায় সাংবাদিকসহ পুলিশের উপর হামলা, পুলিশের গাড়ী ভাংচুর ও আগুনে পড়ানোর মামলার ভয়ে ৪ টি গ্রাম মানুষশূন্য হয়ে রয়েছে।

শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় মেরুরচর হাসেন আলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে প্রশাসনের সমন্বয়ে গ্রামে শান্তি ফিরিয়ে আনার লক্ষে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনমুন জাহান লিজার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আঃ রউফ তালুকদার বলেন, মেরুরচরসহ ৪ গ্রামের হাজারো মানুষের কষ্ট সাংসারিক ক্ষতির কথা বিবেচনা করে প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য একটি সুষ্ঠু সমাধানের চেষ্টা করছি। গ্রামের মানুষ যেন আগের মত স্বাভাবিকভাবে নির্ভয়ে জীবন যাপন করতে পারেন।

প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের নিকট গ্রামের সকল মানুষ যেন শান্তিতে থাকতে পারে সেই দাবী তুলে ধরে এলাকার মুরুব্বিগন বলেন, আমরা গ্রামের ৮০% লোক কৃষক। কৃষিকাজ করা ছাড়া আমাদের উপার্জনের কোন পথ নেই। আমার স্বাভাবিক ভাবেই আমাদের কৃষি ফসল ঘরে তুলতে পারি।

দেওয়ানগঞ্জ ও বকশীগঞ্জের দায়িত্বে পুলিশ কর্মকর্তা সার্কেল রাকিবুল হাসান রাসেল বলেন, মেরুরচরসহ ৪ গ্রামের মানুষ যেন শান্তিতে ও নিরাপদে পূর্বের মত নিজ নিজ ঘরে অবস্থান করতে পারেন এই সম্মতিজ্ঞাপন করছি। পুলিশ জনগনের বন্ধু। তাই বন্ধু হিসাবে আমরা জনগনের বিপদে আপদে পাশে থাকতে চাই। যারা দোষী ব্যাক্তি তাদেরকে আইনের আওতায় আনার সহযোগীতা করুন, আর যারা নির্দোষ ব্যাক্তি তারা নির্ভয়ে বাড়ীতে এসে সাংসারিক কাজকর্ম করুন।

তিনি আরও বলেন, মামলায় আসামীর তালিকাকরনে সোচ্চার হন যাতে কেহ নাম কাটার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে আপনাদের কাছে টাকা চাইলে কাউকে টাকা দিবেন না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনমুন জাহান লিজা বলেন, মেরুরচরবাসী যেন শান্তিতে থাকতে পারেন সেই বিষয়ে আমরা প্রশাসনিকভাবে সার্বিক সহযোগীতা করবো। দোষীরা কোন ক্রমেই ছাড় পাবে না। নির্দোষীরা আর হয়রানি হবে না। সবাই ঘরে ফিরে আসুন। সামনে কৃষি ফসল কর্তন ও রোপন করার সময় তা ঠিকভাবে করুন।

এ ব্যাপারে জামালপুরের পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিন আহমেদ সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ভিডিও ফুটেজ দেখে মুল অপরাধীদের সনাক্ত করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ১১ জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনার সাথে যারা জড়িত না, তাদের কোন প্রকার ভয়ের কারণ নেউ। তাদের কোন রূপ হয়রানী করা হবে না। তিনি নির্দোষী সবাইকে বাড়িতে ফিরে এসে স্বাভাবিক ভাবেই সকল কাজকর্ম করার আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় গত বুধবার (০৫ জানুয়ারী) ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোট কেন্দ্রে পুলিশের উপর হামলা, গাড়ী ভাংচুর, গাড়ী পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় ৯২ জনসহ অজ্ঞাত প্রায় ১৬শ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।