ফের নরবলি কামাখ্যায়! মন্দিরের কাছে উদ্ধার মহিলার মুণ্ডহীন

প্রতিবেশী ডেস্ক: অম্বুবাচীর আগে কামাখ্যা মন্দিরের কাছ থেকে উদ্ধার হল এক মহিলার মুণ্ডহীন দেহ। বুধবার এই ঘটনার খবর জানাজানি হতেই উত্তেজনা ছড়াল গুয়াহাটিতে। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, এটি নরবলির ঘটনা। মৃতদেহটির কাছে পুজোর সামগ্রী ও মাটির প্রদীপ পড়ে থাকার জেরে সন্দেহ আরও বেড়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী ২২ জুন থেকে শুরু হচ্ছে অম্বুবাচী মেলা। সেই উপলক্ষে এখন থেকেই দেশ-বিদেশের মানুষ ভিড় জমাতে শুরু করেছেন নীলাচল পাহাড়ে। এর মাঝে বুধবার কামাখ্যা মন্দির থেকে একটু দূরে বনদুর্গার মন্দিরের কাছে উদ্ধার হয় এক মহিলার মুণ্ডহীন দেহ। পাশে মাটির প্রদীপ, মাটির ঘট, পুজোর জন্য ব্যবহৃত লাল শালু, খালি প্লাস্টিকের বোতল, স্টিলের গেলাস ও প্লাস্টিকের হাতপাখা পড়ে ছিল। মহিলাটির কাপড় এবং পাশের দেওয়ালে রক্তও লেগেছিল। এরপরই ওই মহিলাকে বলি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। যদিও এখন পর্যন্ত তাঁর পরিচয় জানা যায়নি।

এপ্রসঙ্গে গুয়াহাটির ডিজিপি কে কে চৌধুরি জানান, চারদিকে তল্লাশি চালানো হয়েছে। কিন্তু, গুয়াহাটি ও মালিগাঁওয়ের শ্মশানগুলিতে মুণ্ড নিয়ে কাউকে ঘুরতে দেখা যায়নি। বলির জন্য ওই মহিলাকে হত্যা করা হলে আততায়ী শ্মশানে তন্ত্রসাধনার চেষ্টা করবেই। তখন তাকে গ্রেপ্তার করা হবে।

বিষয়টি খুনের ঘটনা হতে পারে বলেও মনে করছেন তদন্তকারীদের একাংশ। তাদের মতে, শনিবার থেকে অম্বুবাচী শুরু হচ্ছে। সেই উপলক্ষে প্রচুর মানুষ এখানে এসেছে। সেই সুযোগে কেউ ওই মহিলাকে খুন করে বনদুর্গা মন্দিরের কাছে ফেলে গিয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে এলেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে। তবে যায় হোক না কেন আততায়ী ওই মহিলার পূর্ব পরিচিত বলে মনে হচ্ছে। কারণ ঘটনাস্থলে কোনও ধস্তাধস্তির চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.