প্রেম কাহিনীঃ রিফাত হত্যার পর একই মাস্টারপ্ল্যানে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হাসানকে খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বরিশালের বরগুনায় প্রকাশ্যে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরীফ নামে একজনকে মর্মান্তিকভাবে হত্যা যখন গোটা দেশে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে ঠিক এমনি সময় ঘটল আরো এক লোমহর্ষক কাণ্ড। প্রেম করায় মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকায় মাহমুদ হাসান মানা (১৯) নামের এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযাগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ তিন জনকে আটক করেছেন।
আটককৃতরা হলেন, ছানোয়ার হোসেন, মনোয়ার হোসেন ও শাওন ইসলাম ইভাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।
শুক্রবার (২৮ জুন) বেলা ১১টায় সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার একডালা ধোপাবাড়ি মহল্লার সানোয়ার হোসেনের বাড়ির জানালা থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত মাহমুদ হাসান মানা একডালা ধোপাবাড়ি মহল্লার ছবদের আলী ভুট্টোর ছেলে।
নিহতের বড় ভাই মারুফ শেখ বলেন, ‘আমার ছোট ভাই মাহমুদ হাসানের সাথে পার্শ্ববর্তী সানোয়ার হোসেনের মেয়ে শাওন ইসলাম ইভার প্রায় ৩ বছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক চলছিল। এ নিয়ে ইভার পরিবার হাসানকে একাধিকবার মারপিট করে। বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) রাতে মোবাইল ফোনে মাহমুদ হাসান মানাকে ডেকে নিয়ে যায় ইভা। সকালে ইভার ঘরের পেছনে জানালা থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পায় এলাকাবাসী। পরে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তার মরদেহ উদ্ধার করে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।’
নিহতের বাবা ছবদের আলী ভুট্টো বলেন, ‘আমার ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আমি হত্যাকারীদের আইনের মাধ্যমে সঠিক বিচার চাই। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’
সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি মোহাম্মদ দাউদ জানান, এটি হত্যা না আত্মহত্যা, তা নিশ্চিত হতে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.