প্রমিসিং স্টার্টআপ- ”লুপ ফ্রিট”

0
97


প্রমিসিং স্টার্টআপ- ”লুপ ফ্রিট”

আমাদের দেশ বরাবরই ভোগে  পরিবহন সংকটে এছাড়া  দক্ষ চালকের অভাব তো লেগেই আছে।আমরা এমন এক দেশে বাস করি,যেখানে সময়মতো এম্বুলেন্স না আসায় রোগী মারা যায়,ভয়ংকর কোনো অগ্নিকাণন্ডে সময়মতো পাওয়া যায়না ফায়ার সার্ভিস।আর আমাদের নিত্যদিনের ব্যবহৃত পরিবহনের অবস্থা এতো করুন যে ভাষায় বোঝানো যাবেনা।

বাণিজ্য ক্ষেত্রেও পরিবহন ব্যবস্থা একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।সময়মতো শিপমেন্ট ডেলিভারি না হলে ব্যবসায় সফল হওয়া অসম্ভব।কিন্তু দুঃখের বিষয় হলেও সত্যি যে আমাদের দেশে লজিস্টিক সাপোর্ট এর অবস্থা খুবই ভয়াবহ  আর সাথে রয়েছে সময়নিষ্ঠা এবং বিশ্বাসযোগ্যতার বিশাল অভাব।এছাড়া বিজনেজ ম্যানরা দক্ষ চালকও খুজে পায়না সময়মতো।ঠিক এরকমই একটি সমস্যার মধ্যে পরতে হয়েছিল রাজিব দাসকে।বছরের পর বছর ধরে তার পারিবারিক ব্যবসা প্রায়ই হুমকির সম্মুক্ষিন হতো একটি লজিস্টিক ইসুর কারনে আর সেটি হচ্ছে প্রয়োজনীয় মালামাল পরিবহন ব্যাবস্থা।

”লুপ ফ্রিট” প্রতিষ্ঠা করার শুরুটা একটি গল্পের মতো।কোনো এক কাজে উবারে রাইড নেয়ারসমায় তিনি অবাক হয় তাদের দ্রুতগতির ট্রান্সপোর্ট ডেলভারি দেখে।তিনি চিন্তা করেন বাণিজ্য ক্ষেত্রে মালামাল পরিবহনের এরকম সুবিধা থাকা দরকার।এতে করে অর্থনৈতিক ক্ষত্রে খুব দ্রুতই উন্নতি নিয়ে আসতে পারবো আমরা।এই ভাবনা থেকেই শুরু ”লুপ ফ্রিট” এর।প্রতিষ্ঠানটি টেকনোলজির ক্ষমতা কাজে লাগিয়ে বিজনেস প্লাটফর্মে তৈরি করেছে এক বিশাল সম্ভাবনা।তারা মাত্র দুই ঘন্টার মধ্যে নিশ্চিত করে সাশ্রয়ী মূল্যের ট্রাক ব্যাবস্থা আর যেখানে পেপারওয়ার্ক নেই বললেই চলে।

loop

loop

চলুন জেনে নেই মূলত তাদের কাজ কী?

  • তারা শিপারদের সুবিধা মতো  ডেট টাইম  ফিক্স করে প্রয়োজনীয় ট্রান্সপোর্ট এর ব্যবস্থা করে।
  • এছাড়া তারা একটি রিয়াল টাইম ট্র্যাকিং সার্ভিস দিয়ে থাকে যাতে শিপাররা বুঝতে পারে তাদের শিপমেন্ট কোথায় পৌঁছাতে হবে।

চলুন এবার জেনে নিই তারা কিভাবে কাজটি করে?

  • তারা মূলত একদল ট্রাক ড্রাইভারদের নিজেদের ট্র্যাকে রাখে এবং উপযুক্ত লোকেশন অনুযায়ী শিপারদের সরবারহ করে।
  • তাদের  ওয়েবসাইটে একটি এপ রয়েছে ,যেখানে ট্রান্সপোর্ট কস্ট সহ যাবতীয় বিষয় উল্লেখ করা আছে। শিপাররা তাদের  সুবিধা মত ট্রান্সপোর্ট  বাছাই করতে পারবে।
লুপ ফ্রিট

লুপ ফ্রিট

রাজীবের মতে,বাংলাদেশে  ট্রাকের দাম  খুবই অস্থিতিশীল।এখানে সকাল বেলা হয়তো সবচেয়ে কম দামে ট্রাক পাওয়া যায় রাতেই তার দাম আকাশ্চুম্বি। তাই কাস্টমারকে একটি নির্দিষ্ট দামে ট্রাক সরবারহ করা খুবই কষ্টসাধ্য। ”লুপ” দুই উপায়ে এই কাজটি করে থাকে।

  • কন্ট্রাকচুয়ালঃ সারাবছর ফিক্স প্রাইস রেঞ্জ বজায় রাখা।
  • মার্কেট-রেটঃ মার্কেট রেট অনুযায়ী প্রাইস রাখা।

প্রতিষ্ঠানটির জন্য সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিলো ট্রাক ড্রাইভার এবং ট্রাকের মালিকদের একত্র করা।তারা খুব দূরে তাদের ট্রাক পাঠাতে চায়না।এছাড়া যারা বহু বছর ধরে দালালদের সাথে কাজ করে আসছে,তাদের লুপের সাথে কাজ করতে কনভেন্স করাও ছিলো কষ্টসাধ্য।কিন্তু লুপের ফ্ল্যাক্সিবল পেমেন্ট সিস্টেমের কারনে তারা উৎসাহ দেখিয়েছে লুপের সাথে কাজ করার। 

রাজিব ও তার সহকর্মীরা লুপকে একটি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যেতে যায়।যাতে করে শুধু দেশে নয় বাইরের যেকোনো দেশেই তারা পৌঁছে দিতে পারে দেশের পন্য। 

You can check our other blogs here:https://ysseglobal.org/blog/the-success-story-of-zoom/

শাহানা তামান্না সাথী 

ইন্টার্ন,কনটেন্ট রাইটিং ডিপার্টমেন্ট 

YSSE

The post প্রমিসিং স্টার্টআপ- ”লুপ ফ্রিট” appeared first on Youth School for Social Entrepreneurs.



Source link