পোল্যান্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থকগোষ্ঠীর ইফতার ও আলোচনা সভা

81

ইঞ্জিনিয়ার আহমেদ রাজ,পোল্যান্ডঃ
পোল্যান্ডে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সমর্থক গোষ্ঠীর উদ্দ্যোগে ইফতার মাহফিল এবং মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল (২৮ এপ্রিল) বৃহস্পতিবার রাজধানী ওয়ারশর অদূরে হোটেল গ্ৰোমানের কনভেনশন হলে স্থানীয় সময় বিকেল ৬টায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

আওয়ামীলীগ সমর্থক গোষ্ঠীরআয়োজিত অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আরিফুর রহমান,এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা হামিদুল ইসলাম চৌধুরী মুরাদ ।

এসময় আরও বক্তব্য রাখেন, যুবলীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান,বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী ও যুবলীগ নেতা শরীফ আহমেদ,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী তানিয়া আফরিন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ রাশিয়া শাখার সাবেক যুগ্ম সাধারণ ইঞ্জিনিয়ার আহমেদ রাজ। অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন শেখ এরশাদুর রহমান,বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী পোল্যান্ড । অন্যদের মধ্যে ইফতার মাহফিলে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পোল্যান্ডে অবস্থানরত অনেক বাংলাদেশি। সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে অনুষ্ঠান হয়ে উঠে প্রাণবন্ত। অনুষ্ঠান দুটি পর্বে বিভক্ত করা হয়। প্রথম পর্বে পোল্যান্ডে আওয়ামীলীগের সমর্থক গোষ্ঠীর সবাইকে নিয়ে আলোচনা এবং দ্বিতীয় পর্বে ছিল ইফতার এবং দোয়া মাহফিল।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করা হয়। আলোচনায় ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের অনেকেই অংশগ্রহণের ইচ্ছে প্রকাশ করেন। তারা বলেন, সময়ের স্বল্পতার জন্য সবাই অংশগ্রহন করতে পারেননি। জুম মিটিংয়ের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হয়েছেন অল ইউরোপীয় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আন্তর্জাতিক সম্পাদক এবং জার্মানে বাংলাদেশের অনারারি কনসাল হাসনাত মিয়া। এসময় আলোচনায় আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ পোল্যান্ডে আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন নিয়ে আলোচনা করা হয়। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি নেতা কাজী সাইফুদ্দীন, জনাব শাহীন মন্ডল, জনাব মনসুর মাহবুব, পোল্যান্ডে একটি ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাহাবুব সিদ্দিকী,আবু জাফর ফজলে রাব্বী,শাহজালাল রাসেল, আকবর আলি,গাজী লিমন,গোলাম বায়েজিদ, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও কবি শামসুন্নাহার প্রমুাখ। তিনি এসময় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নিজের লিখা একটি কবিতা পাঠ করেন। আলোচনা সভায়

বক্তারা সবাই ঐক্যমত পোষণ করেন যে,পোল্যান্ডে আওয়ামীলীগের একটি সাংগঠনিক ভিত্তি দাঁড় করানো প্রয়োজন। সংগঠন হতে হবে সবার জন্য গ্ৰহণযোগ্য। বক্তারা আরও বলেন,আওয়ামীলীগের কমিটিতে সেসব লোকজনের স্থান পাওয়া উচিত যারা শেখ মুজিবুর রহমানের চেতনা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং স্বাধীন বাংলাদেশের চেতনাকে ধারণ করে। কোন দলছুট কিংবা সুখের পাখি যাতে দলে স্থান করে নিতে না পারেন সেদিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে তাগিদ দেওয়া হয়। রাজনীতির ময়দান খালি পেয়ে যেকেউ এসেই যাতে দলে স্থান করে নিতে না পারেন সেদিকেও সজাগ দৃষ্টি রাখতে সবাইকে আহবান করেন বক্তারা। অনুষ্ঠানে সুভেচ্ছা জানিয়েছেন ইউরোপের বিভিন্ন দেশের আওয়ামীলীগের নেতারা এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবার সর্বসম্মতিক্রমে সদস্য নিবন্ধনের কার্যক্রম শুরুর প্রস্তুতি নেওয়া হয়। নিবন্ধিত সদস্যদের থেকে একটি খসড়া কমিটি প্রস্তাবনা করা হবে। এই কমিটি কেন্দ্রীয় কমিটির অনুমোদন সাপেক্ষে সম্মেলনের মাধ্যমে চূড়ান্ত কমিটি গঠন করবে। উপস্থিত সবার সম্মতি সাপেক্ষে একটি রেজুলেশন প্রস্তুত করা হয়েছে যা কেন্দ্রীয় কমিটিতে জমা দেয়া হবে। মূলত এই আয়োজনের মাধ্যমে পোল্যান্ডে আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক গোড়াপত্তন হল। বক্তারা এই মহতী উদ্যোগের শুভ কামনা করেছেন।