পৈতৃক ভিটায় বাড়ি বানাতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলার স্বীকার সাতকানিয়ার সার্ভেয়ার শাহআলম।

0
122

সাতকানিয়া প্রতিনিধি

বাড়ি নির্মান করতে গিয়ে প্রভাবশালী প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে মৃত্যুর সাথে পান্জা লড়ে যাচ্ছে সাতকানিয়ার উত্তর ঢেমশার মৃত আব্দুল শুক্কুরের ছেলে মো:শাহআলম( ৪০)

এই ঘটনায় গত ২২শে জুলাই মো: শাহআলম বাদী হয়ে উত্তর ঢেমশার ৬নং ওয়ার্ডে র আনছুর আলীর বাড়ির মৃত আব্দুল কাদেরের পুত্র আবুল হোসেন( ৪৫)
ও আব্দুর রাজ্জাক( ৩০) ও সাতকানিয়া থানার এস আই মো: মাহবুব এর বিরুদ্বে চট্টগ্রাম চীফ জ্যুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি চাদাঁবাজির অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়,সাতকানিয়া উপজেলার উত্তর ঢেমশার ৬নং ওয়ার্ডে আনছুর আলীর বাপের বাড়ির মৃত আব্দুল শুক্কুরের ছেলে শাহআলম তার পৈতৃক ভিটিতে বাড়ি নির্মান করতে গেলে প্রতিপক্ষ আবুল হোসেন ও আব্দুর রাজ্জাক অন্যায় ভাবে বাধা প্রদান করলে উভয় পক্ষের ঝগড়া ঝাটি থানা পর্যন্ত গড়ায়,ওখানে একের পর এক বৈঠক বসতে থাকে কিন্তু বৈঠকে কোন প্রকার সূরাহা হয়না।

এবিষয়ে সিআর মামলার বাদী মো: শাহ আলম বলেন গত ৮ই জুলাই আমার মালপত্র নষ্ট হয়ে যাচ্ছে তাই আমি আবারো পুনরায় কাজে ধরি, তখন আমার প্রতিপক্ষ এবং প্রতিপক্ষের সাঙ্গপাঙ্গরা পুনরায় আমাকে বাধা প্রদান করে এবল তাদের মনভূত পুলিশ অফিসার এস আই মাহবুবকে ডেকে আমাকে বেদড়ক মারধর করেন, এক পর্যায়ে বেদম প্রহারে আমার পা ভেঙ্গে যায়,আমি সাতকানিয়া হাসপাতাল,এবং চট্টগ্রাম মেডিকেলে চিকিৎসা নিয়েছি,চিকিৎসকরা বলেছেন আমার পা ভালো হতে আগামী ৩মাস বেড রেষ্টে থাকতে হবে।

তাই আমি আমার চিকিৎসা সংক্রান্ত সকল কাগজ পত্র প্রদর্শন পূর্ব চট্টগ্রাম কোর্টে মামলাটি করেছি।

আসলে আমরা সকল ডকুমেন্টস পত্রে শক্ত থাকার পরে ও এস আই মাহবুব প্রতিপক্ষের খুব আপনজন হওয়ার সুবাদে প্রতিনিয়ত নির্যাতনের স্বীকার হচ্ছি।

অথচ!আমার বাড়ীর জন্য মালামাল আনা সেগুলি এখন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

আমরা খুবই গরীব আর অসহায় হওয়াতে কেউ আমাদের বিষয়টা কর্ণপাত করছেনা,একজন পুলিশ অফিসার কর্তৃক অন্যায়ের স্বীকার হওয়ার পরে ও বিচার না পেয়ে আমি বাধ্য হয়ে তাদের বিরুদ্বে মামলা দায়ের করেছি।

মামলার তদন্ত ভার সাতকানিয়া সার্কেলের এ্যাডিশনাল এসপি বরাবর হস্তান্তর করেছে মাননীয় আদালত,তাছাড়া এস আই মাহবুব সহ অন্যান্য আসামীদের বিরুদ্বে আমি দুদক সহ চট্টগ্রাম পুলিশ সুপার ও ডিআইজি মহোদয়কে ও লিখিত অভিযোগ করেছি।

লিখিত অভিযোগ ও এজাহারে এস আই মাহবুবের বিরুদ্বে দায়িত্বের তোয়াক্কা না করে অনৈতিক সুবিধা আদায়ের উদ্দেশ্যে বাদী শাহআলমের উপর হামলা করেছেন বলে ও জানান তিনি।

এদিকে অভিযুক্ত এস আই মাহবুব বলেন,শাহআলমকে তো মারধর করা দূরের কথা আমি ঐদিন তাকে দেখিনাই মারবো কেমনে,তাকে যে মারিনি এবং শুনেছি সে হোচটঁ খেয়ে পা ভাঙছে এটার জন্য অসংখ্য লোক সাক্ষী আছে,আসলে সে কী বলতে চাচ্ছে সেটা আমি নিজেও বুঝতেছিনা।

মতামত

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে