পুলিশ কর্মকর্তাই সিরিয়াল কিলার

90


আন্তর্জাতিক ডেস্ক

৩৫ বছর ধরে কুখ্যাত এক সিরিয়াল কিলারকে খুঁজছিল ফরাসি পুলিশ। অবশেষে ওই অভিযান শেষ হয়েছে এক ব্যক্তির আত্মহত্যার মধ্য দিয়ে। নিজের সুইসাইড নোটে খুন ও ধর্ষণে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন তিনি। ডিএনএ পরীক্ষার পর ছয় ধর্ষণ এবং চার খুনের সঙ্গে তার সংশ্লিষ্টতা প্রমাণ হয়েছে।

বিবিসি বলছে, ১৯৮৬ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত প্যারিসে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে রেখেছিলেন ফ্রাঙ্কোয়া ভেরোভ। যিনি নিজেই ফ্রান্সের সামরিক পুলিশের সাবেক কর্মকর্তা। সে সময় লাগাতার কয়েকটি খুন-ধর্ষণের ঘটনার কোনো কূলকিনারা করতে পারেনি পুলিশ। ৩৫ বছর ধরে খুনি ছিল ধরাছোঁয়ার বাইরে।

ফ্রাঙ্কোয়ার অপরাধগুলোর মধ্যে আলোচিত ছিল ১১ বছরের এক কিশোরীকে হত্যার ঘটনা। ১৯৮৬ সালে প্যারিসে স্কুলে যাওয়ার সময় নিখোঁজ হয় ওই কিশোরী।

তবে, এরকম আরও কতগুলো অপরাধের সঙ্গে জড়িত তা খোদ পুলিশও জানে না বলে অভিযোগ করেছেন ওই হত্যা মামলার আইনজীবী। তার মতে ফ্রাঙ্কোয়ার অনেক অপরাধ কখনও পুলিশের সামনেই আসেনি।

এদিকে, কয়েকটি অপরাধের সঙ্গে জড়িত এমন সন্দেহ থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর ফ্রাঙ্কোয়ার ডিএনএ নমুনা চায় পুলিশ। ২৭ সেপ্টেম্বর ফ্রাঙ্কোয়ার স্ত্রী জানান, তিনি নিখোঁজ হয়েছেন।

ওই দিনই একটি ভাড়া করা ফ্ল্যাট থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মরদেহের পাশ থেকে একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করে পুলিশ। সেখানে নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন ফ্রাঙ্কোয়া। এছাড়াও, ডিএনএতে মিলেছে তার কথার প্রমাণ। বেশ কয়েকটি অপরাধস্থল থেকে ডিএনএন পাওয়া গেছে।

সারাবাংলা/একেএম





Source link