নৌকার মনোনয়ন পেতে হলে দিতে হবে ত্যাগের পরীক্ষা

78


নৃপেন রায়, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: পারিবারিক রাজনীতির উত্তরাধিকারী হয়ে রাজনীতি করলেই দলীয় মনোনয়নে মূল্যায়ন করবে না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, রাজনীতির মাঠে ত্যাগের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে তবেই পরবর্তী সময়ে দলীয় মনোনয়নের জন্য মূল্যায়ন করা হবে নেতাদের।

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ড ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় শেখ হাসিনা এমন কথা বলেন। বৈঠকে উপস্থিত সূত্র সারাবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

দলের কেন্দ্রীয় নেতারা বলছেন, উত্তরাধিকারের রাজনীতির বাইরে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার চর্চা এরই মধ্যে শুরু করেছে আওয়ামী লীগ। সম্প্রতি ঢাকা-১৪, ঢাকা-৫, কুমিল্লা-৫ ও সিলেট-৩, নওগাঁ- ৬ ঢাকা-৪, পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনেও প্রয়াত নেতার পরিবারের বাইরের মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতাদের মনোনয়ন দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ড। ভবিষ্যতেও দলের জন্য নিবেদিত ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়নের নজিরই দেখা যাবে— দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনা সেই বার্তাই স্পষ্ট করেছেন মনোনয়ন বোর্ডের সভায়।

নৌকার মনোনয়ন পেতে হলে দিতে হবে ত্যাগের পরীক্ষা

মনোনয়ন বোর্ডের সভায় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, পারিবারিক রাজনীতির উত্তরাধিকার সূত্রে রাজনীতির মাঠে উঠে এলেই মনোনয়নের মাঠে কাউকে মূল্যায়ন করা হবে না। রাজনীতির মাঠে ত্যাগের পরীক্ষা দিয়ে রাজনীতি করতে হবে। রাজনীতিতে অভিজ্ঞতা অর্জন করতে হবে। এ দিকগুলো বিবেচনায় না থাকলে অন্যরা দলের রাজনীতিতে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে। নির্বাচনের রাজনীতিতে মূল্যায়নের ক্ষেত্রে এ বিষয়েও আমাদের নজর রাখতে হবে।

বৈঠক সূত্র আরও জানায়, তৃণমূলের সম্মেলনের মাধ্যমে যেন অনুপ্রবেশকারীরা সংগঠনের বিভিন্ন দায়িত্বে আসতে না পারেন, সেদিকেও নজর রাখার নির্দেশ দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। পাশাপাশি মূল দলকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নেতৃত্ব নির্বাচন করার ওপরও গুরুত্ব দেন।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ডের সদস্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আমির হোসেন আমু, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ড. আব্দুর রাজ্জাক, লে. কর্নেল (অব.) ফারুক খান, ওবায়দুল কাদের, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান ও আবদুস সোবহান গোলাপ।

আরও পড়ুন- দ্বাদশে চোখ আওয়ামী লীগের, বিদ্রোহীরা পাবেন না নৌকা

জাতীয় সংসদের কুমিল্লা-৭ আসনের উপনির্বাচন ছাড়াও রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী পৌরসভার মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ, নরসিংদী সদর উপজেলা, নেত্রকোনা জেলার খালিয়াজুরি, চাঁদপুর জেলার শাহরাস্তি, যশোর সদর উপজেলা, মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল, বাগেরহাট জেলার কচুয়া, কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর ও ফেনী সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করতে মনোনয়ন বোর্ডের সভায় বসেছিল আওয়ামী লীগ।

স্থানীয় সরকার জনপ্রতিনিধি মনোনয়ন বোর্ড ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের এই যৌথসভায় কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসনের উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়া হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) সাবেক উপাচার্য (ভিসি) ও কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্তকে। এই আসনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ গত ৩০ জুলাই মৃত্যুবরণ করলে আসনটি শূন্য হয়।

এই আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন আরও সাত জন— প্রয়াত অধ্যাপক আলী আশরাফের ছেলে চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি মুনতাকিম আশরাফ, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. সহিদ উল্লাহ, কুমিল্লা উত্তর জেলা কৃষক লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. শাহজালাল মিঞা, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জাকির হোসেন, দোলনাই-নবাবপুর কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মজিবুর রহমান, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও কুমিল্লা উত্তর জেলা যুব মহিলা লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক নাজনীন আক্তার এবং কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম। সার্বিক বিবেচনায় শেষ পর্যন্ত আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড নৌকা প্রতীক তুলে দিয়েছেন চিকিৎসক প্রাণ গোপাল দত্তের হাতে।

সারাবাংলা/এনআর/আইই/টিআর





Source link