নির্বাচন ব্যবস্থা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে হবে: জিএম কাদের

60


স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের বলেছেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের উদ্দেশ্যগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল- মানুষে মানুষে বৈষম্যের অবসান, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা, সাধারণ জনগণের অধিকার নিশ্চিত করা ইত্যাদি। এসব উদ্দেশ্যে সফল করার জন্যই ৫০ বছর আগে পাকিস্তান থেকে স্বাধীন হয়েছিলাম। কিন্তু আমার মনে হয়, স্বাধীনতার ৫০ বৎসর অতিক্রান্ত হলেও আজও সম্পূর্ণভাবে তা অর্জন করা সম্ভব হয়নি।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) জাতীয় সংসদে সুবর্ণজয়ন্তীর উপর বিশেষ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, ‘এখনও জনগণকে দাবি করতে হয় নির্বাচন ব্যবস্থা অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে হবে। দেশে গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে হবে ও মানুষের ন্যায্য অধিকার সুনিশ্চিত করতে হবে, সুশাসনের অভাব দূর করতে হবে, অর্থনৈতিক ও দলীয়করনের বৈষম্য কমাতে হবে, অবিচার, অনাচার, জুলুম, নির্যাতন ইত্যাদি থেকে মুক্তি দরকার। এখন সময়ের দাবি, আগামী দিনগুলোতে এসব অসম্পূর্ণ প্রত্যাশা পূরণ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আজ আমরা আনন্দ উৎসাহ নিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালন করছি। আমি চাই, তারচেয়ে বহুগুণ বেশি আনন্দ-উৎসাহ নিয়ে যাতে আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম স্বাধীনতার হীরক জয়ন্তী উদযাপন করতে পারে- সে পথ প্রশস্ত করে যেতে হবে আমাদেরই। আজ আমাদের সকলেরই অঙ্গীকার হোক, বিগত দিনের সকল ব্যর্থতা-গ্লানি মুছে এগিয়ে যাব ঐক্যবদ্ধভাবে।’

বিরোধীদলীয় উপনেতা বলেন, “রাষ্ট্রপতি তার ভাষণের শেষ অংশে বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর ‘সোনার বাংলা’ গড়ে তোলার অঙ্গীকার বাস্তবায়নে প্রয়োজন ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে সকলের মধ্যে ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। রাজনৈতিক দলগুলোকে পরমতসহিষ্ণুতা ও পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধের সংস্কৃতি গড়ে তুলতে হবে। আসুন স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা দল-মত-পথের পার্থক্য ভুলে, ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে জাতির গণতান্ত্রিক অভিযাত্রা ও দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার মধ্য দিয়ে লাখো শহিদের রক্তের ঋণ পরিশোধ করি।

তিনি বলেন, ‘প্রয়াত কিংবা জীবিত জাতীয় নেতানেত্রী, রাষ্ট্রনায়কদের প্রতি সম্মান দিয়ে কথা বলতে হবে। কেউ যদি তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের নেতাকে অসম্মান বা গালি দিয়ে কথা বলেন, তিনি নিজে তার নেতা নেত্রীর প্রতি পাল্টা অসম্মান করার সুযোগ সৃষ্টি করেন।’

জিএম কাদের প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাবের সঙ্গে সহমত পোষণ করে বলেন, ‘আমরা বিরোধীদল; আমাদের অবস্থানে থেকে সরকারের ত্রুটি-বিচ্যুতি তুলে ধরে সরকারকে সেগুলো সম্পর্কে সজাগ করে দেওয়ার চেষ্টা করছি।’

সারাবাংলা/এএইচএইচ/পিটিএম





Source link