নিউজিল্যান্ডে সাফল্যের মন্ত্র জানালেন সোহান

0
181

ঢাকা, ০৩ মার্চ – দ্বিপাক্ষিক সিরিজে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে কখনোই জয় পায়নি বাংলাদেশ। এবার নিউজিল্যান্ডে জয়ের খরা কাটানোর আশাবাদ জানিয়ে দেশ ছেড়েছে বাংলাদেশ দল। জয়ের খাতা খোলার কাজটা কঠিন হলেও এবার ভালো সুযোগ দেখছেন নুরুল হাসান সোহান। ২০১৭ সালে নিউজিল্যান্ডেই টেস্ট অভিষেক হয়েছিল এ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যানের। সেই অভিজ্ঞতার আলোকে সোহান বলেছেন, অতীতের তুলনায় এবার ভালো করবে বাংলাদেশ দল।

উইকেটকিপার হিসেবে যে কোনো মূল্যায়নেই সেরা। তারপরও দলে নিয়মিত হতে পারছেন না তিনি। সর্বশেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে হোম সিরিজে টেস্টের প্রাথমিক দলে ছিলেন সোহান। কিন্তু জায়গা হয়নি চূড়ান্ত দলে।

বর্তমানে জাতীয় ক্রিকেট লিগের জন্য মিরপুর স্টেডিয়ামে নিয়মিত অনুশীলন করছেন সোহান। গতকাল অনুশীলন শেষে বাংলাদেশের নিউজিল্যান্ড সফরে ভালো কিছুর আশাবাদ জানিয়েছেন এ তরুণ ক্রিকেটার। সোহান বলেন, ‘এর আগে যতবার আমরা নিউজিল্যান্ড সফর করেছি। আমার কাছে মনে হয়, এর চাইতে এবার ভালো রেজাল্ট হবে। সত্যিকার অর্থে ব্যাটসম্যানদের জন্য নতুন বলটা একটু কঠিন হয়ে থাকে। নতুন বলটা সামলে নিতে পারলে পুরাতন বলে ব্যাটিং করা সহজ হয়ে যায়। নিউজিল্যান্ডের উইকেট ট্রু উইকেট হয়ে থাকে। ফলে বল পুরাতন হলে ব্যাটিং করে মজা পাওয়া যায়।’

আরও পড়ুন : বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়ে যা বললেন সৌরভ গাঙ্গুলী

কোয়ারেন্টাইনের পর্বটা কঠিন হলেও দ্রুত মানিয়ে নেওয়ার কথাই বলছেন সোহান। তিনি বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে এভাবে থাকা আসলেই কঠিন। তবে আমরা যেহেতু পেশাদার ক্রিকেটার যত দ্রুত সম্ভব আমাদের এটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে পারলে আমাদের জন্যই ভালো।’

সোহানের মতে, নিউজিল্যান্ডে ভালো করতে হলে নতুন বলে উইকেট দেওয়া যাবে না। পুরোনো বলে সেখানে ব্যাটিংটা উপভোগ করা যায়। গতকাল সোহান বলেছেন, ‘নতুন বলে নিউজিল্যান্ডের ওয়েদার ও কন্ডিশনে খেলাটা আসলেই কঠিন। নতুন বলটা যদি পার করতে পারি, মানিয়ে নিতে পারি, ধরেন প্রথম ১০ ওভারে একটার বেশি উইকেট না দেই, তাহলে ব্যাটসম্যানদের জন্য রান করা অনেক সহজ হয়ে যাবে। আমার ওয়ানডে ও টেস্ট অভিষেক নিউজিল্যান্ডেই হয়েছিল। পুরাতন বলে ব্যাটিং করে মজা পাওয়া যায়। বলটা সুন্দর দেখা যায়। আমাদের দেশে যেমন বলটা পিচে পড়লে আমরা দোমনায় থাকি যে কী হবে। আমার কাছে মনে হয় ট্রু বাউন্স থাকে (নিউজিল্যান্ডে)। অবশ্যই রান করতে হলে কষ্ট করতে হবে।’

সূত্র : ইত্তেফাক
এন এইচ, ০৩ মার্চ

Source link