দেশে কি ডিজিটাল কারেন্সির বাজার উন্মুক্ত হবে? কোন লক্ষ্যে এগোচ্ছে ১০০০ দিনের ক্যাম্পেইন? key-highlights-from-wazirxs-1000-day-indiawantscrypto-campaign– News18 Bangla

82


IndiaWantsCrypto: সহস্র এক আরব্য রজনীর কথা মনে আছে? যেখানে ১০০১ রাত ধরে গল্প বলে বলে নারীবিদ্বেষী স্বামীর ধারণার পরিবর্তন করেছিলেন ওয়াজির-কন্যা শেহরাজাদে? অনেকটা সেই ঘটনা ফিরে এসেছে হালফিলে, WazirX গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা নিশ্চল শেট্টি (Nischal Shetty), সমীর মাত্রে (Sameer Mhatre) এবং সিদ্ধার্থ মেননের (Siddharth Menon) হাত ধরে। তফাতের মধ্যে তাঁরা সরকারকে ডিজিটাল কারেন্সি ব্যবহারের গুরুত্ব বোঝাতে চান। এই লক্ষ্যে ১০০০ দিন ধরে রোজ একটি করে ট্যুইট ছাড়ছেন শেট্টি। ক্যাম্পেইনের নাম দেওয়া হয়েছে #IndiaWantsCrypto। কেন না, ২০১৮ সালে এঁদের সংস্থা তৈরির কিছু দিনের মধ্যে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া (RBI) দেশীয় ব্যাঙ্কগুলোকে ক্রিপ্টোকারেন্সি লেনদেনে বারণ করেছে। অতএব, ট্যুইট চলছে, এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক কী ভাবে এবং কোন লক্ষ্যে এগোচ্ছে ১০০০ দিনের ক্যাম্পেইন!

প্রথম দিনের ট্যুইটে শেট্টি তৎকালীন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি (Arun Jaitley) এবং প্রধানমন্ত্রীর দফতরকে ট্যাগ করেন। সরাসরি জানান যে দেশের যুবসম্প্রদায় উপার্জনের এক নয়া পথ পেয়েছে, তা যেন বন্ধ করে দেওয়া না হয়। বিশেষ করে সবার জন্য দেশে যখন পর্যাপ্ত চাকরির সুযোগ নেই! এই প্রসঙ্গে ফলোয়ারদেরও ট্যুইটে কোনও না কোনও মন্ত্রীকে ট্যাগ করতে বলেন শেট্টি। সাফ জানিয়ে দেন- যত দিন না প্রত্যুত্তর মিলছে, এই ট্যুইট পর্ব জারি থাকবে!

১০০ দিন পরে ছবিটা অনেকটা বদলে যায়, রোদ-ঝলমলে হয়ে ওঠে যেন! #IndiaWantsCrypto তত দিনে ১.৫ মিলিয়ন জনসমর্থন গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। কিন্তু সরকারের কাছ থেকে উত্তর মেলেনি! তাতে কী, জনসমর্থনে উৎসাহ বেড়েছে, কণ্ঠস্ব হয়েছে আরও জোরালো, সেই নিয়েই ট্যুইটের লক্ষ্যে নিশ্চল WazirX-এর সহপ্রতিষ্ঠাতা।

২০০ দিন যখন পেরিয়ে গিয়েছে, সেই সময়ে আবার ক্ষমতায় এসেছে NDA সরকার। কিন্তু সরকারি তরফে কোনও উত্তর মেলেনি। ৩০০ দিন পেরিয়ে গেলেও মেলেনি কোনও আইন-নির্মাতার তরফে সাড়া।

৩০৩ দিনের মাথায় অবশ্য সাড়া দিয়েছেন স্কিল ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড অন্ত্রেপ্রেনারশিপ (Skill Development and Entrepreneurship), ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড ইনফরমেশন টেকনোলজির (Electronics and Information Technology) কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজীব চন্দ্রশেখর (Rajeev Chandrashekhar), ট্যুইটে তিনি সরাসরি মেসেজ করতে বলেছেন শেট্টিকে।

৩৬৫ দিন যখন পূর্ণ হল, তখন #IndiaWantsCrypto ১ লক্ষ রিট্যুইট আর লাইকের রেকর্ড গড়ে ফেলেছে। উঁহু, সরকারের তরফে তখনও সাড়া মেলেনি। তবে সুপ্রিম কোর্টে মামলা উঠেছে, RBI-এর ক্রিপ্টোকারেন্সি ব্যান করার নির্দেশ কতটা যুক্তিযুক্ত তা নিয়ে।

৪৮৯ দিনের মাথায় সুপ্রিম কোর্ট সাফ জানাল যে RBI-এর সিদ্ধান্ত অযৌক্তিক, দেশে ক্রিপ্টোকারেন্সি লেনদেনে সম্মতি দেওয়া হল। সেই সঙ্গে সরকারকে নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট- ক্রিপ্টোকারেন্সির লেনদেন নিয়ে যেন একটি সুষ্ঠু আইন প্রণয়ণ করা হয়।

৮২২ দিনের ছবি বেশ জটিল- বাজেট অধিবেশনে Cryptocurrency and Regulation of Official Digital Currency Bill, 2021 নামে একটি বিলের কথা তুলে ধরা হল। সেই সঙ্গে সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক ডিজিটাল কারেন্সি (CBDC) নিয়ে আসার কথাও ঘোষণা করা হল। বলা হল- দেশে একমাত্র এই ক্রিপ্টোকারেন্সিই বৈধ বলে স্বীকৃত হবে, প্রাইভেট ক্রিপ্টোকারেন্সিকে গুরুত্ব দেওয়া হল না। এই ঘোষণায় যাঁরা #IndiaWantsCrypto ক্যাম্পেইন সমর্থন করেছিলেন, তাঁরাও বেশ হকচকিয়ে গেলেন।

৮৫৬ দিনের মাথায় কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন (Nirmala Sitharaman) জানালেন যে সরকার ক্রিপ্টোকারেন্সির লেনদেন নিয়ে একটি সুষ্ঠু পরিকল্পনা বাস্তবায়নের পথে এগোচ্ছে।

৯৯৫ দিনে জানা গেল সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক ডিজিটাল কারেন্সি প্রকল্প শুরু হওয়ার কথা। প্রাইভেট ক্রিপ্টোকারেন্সি স্বীকৃত না হলেও শেট্টি নিরাশ হননি। তাঁর দাবি- সরকারি হস্তক্ষেপ এবং নিয়ন্ত্রণ আখেরে জনতাকে এর ব্যবহারে উৎসাহিত-ই করবে!



Source link