ডেঙ্গু থেকে বাঁচতে বাড়ির আশপাশ পরিষ্কার রাখতে হবে

চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সার্কিট হাউজের সামনে থেকে সপ্তাহব্যাপী মশক নিধন, ডেঙ্গু প্রতিরোধ, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও জনসচেতনতামুলক র‌্যালির উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল ২৯ জুলাই প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বেলুন উড়িয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, বিভাগীয় পরিচালক (স্থানীয় সরকার) দীপক চক্রবর্তী, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামী, জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা, সিএসপি’র উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর) শ্যামল কুমার নাথ, বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. হাসান শাহরীয়ার কবির, জেলা সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী, রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল প্রমুখ। এরপর বিভাগীয় কমিশনারের নেতৃত্বে সার্কিট হাউজের সামনে থেকে মশক নিধন ও ডেঙ্গু প্রতিরোধ বিষয়ক ব্যানার-ফেস্টুন-প্লে কার্ড হাতে নিয়ে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি কাজীর দেউরী হয়ে ওয়াসা মোড় ও লালখান বাজার ঘুরে পুনরায় সার্কিট হাউজের সামনে এসে শেষ হয়। চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তা, সিটি কর্পোরেশন, মেট্রোপলিটন পুলিশ, জেলা পুলিশ, আনসার-ভিডিপি, ফায়ার সার্ভিস, বিভাগীয় স্বাস্থ্য অফিস, সিভিল সার্জন অফিস, গণমাধ্যমকর্মী, বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি,এনজিও কর্মী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা র‌্যালিতে অংশ নেন। শেষে এমএ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন আউটার স্টেডিয়ামে জমে থাকা বৃষ্টির পানি ও ঘাসে ফগার মেশিন এবং হ্যান্ড স্প্রে দিয়ে মশক নিধন ওষুধ ছিটিয়ে সপ্তাহ ব্যাপী কর্মসূচির সুচনা করেন অতিথিবৃন্দ।
মশক নিধন, ডেঙ্গু প্রতিরোধ, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও জনসচেতনতামূলক র‌্যালির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার বলেন, এডিস মশার কামড়ে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রামসহ সারাদেশে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে অনেকে অকালে মৃত্যুবরণ করছে, আবার অনেকে বিভিন্ন হাসপাতালে চিৎিসাধীন। বাঁচতে হলে এডিস মশা ও অন্যান্য মশা নিয়মিত নিধন করতেই হবে। ঘর ও আশপাশের যেকোন পাত্রে বা জায়গায় জমে থাকা পানি নিয়মিত পরিষ্কার করলে এডিস মশার লার্ভা মরে যায়। ব্যবহৃত পাত্রের গায়ে লেগে থাকা মশার ডিম অপসারনে পাত্রটি ঘষে ঘষে পরিষ্কার করতে হবে। এয়ার কন্ডিশনার, ফুলের টব, প্লাস্টিকের পাত্র, ড্রাম,পরিত্যক্ত টায়ার, মাটির পাত্র, বালতি, টিনের কৌটা, ডাবের খোসা, নারিকেলের মালা, কন্টেইনার, মটকা, ব্যাটারী শেল ও পরিষ্কার পানিতে এডিস মশা ডিম পারে। নর্দমায়, নোংরা ও ময়লা পানিতে এডিশ মশা ডিম পাড়ে না। যেকোন উপায়ে এডিস মশা ধ্বংস করতে হবে। ডেঙ্গু থেকে রক্ষা পেতে হলে বাড়ী-ঘরের আশপাশ সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। দিনে অথবা রাতে ঘুমানোর সময় অবশ্যই মশারী ব্যবহার করতে হবে এবং জ্বর দেখা দিলেই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। ডেঙ্গু একটি ভাইরাসজনিত জ্বর যা এডিস মশার মাধ্যমে ছড়ায়। সাধারণ চিকিৎসাতেই ডেঙ্গু সেরে যায়, তবে হেমোরেজিক ডেঙ্গু জ্বর মারাত্মক হতে পারে। এডিস মশার বংশ বৃদ্ধি রোধের মাধ্যমে ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ করা যায়। এ ব্যাপারে প্রত্যেককে সচেতন থাকতে হবে। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি ওষুধ ছিটিয়ে এডিস মশার বংশ বিস্তার রোধে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে কার্যকর ভূমিকা পালন করতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

মতামত দিন

Post Author: bdnewstimes