জেলা প্রশাসনের নির্দেশনা উপেক্ষিত: আলতাফ মাস্টারের ঘাটে পর্যটকদের ভিড়

0
70

জহিরুল ইসলাম শিবলু, লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি :: করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি সত্ত্বেও লক্ষ্মীপুরের পর্যটন কেন্দ্র আলতাফ মাস্টারের মাছঘাটেটি রয়েয়ে পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত। তাই প্রতিদিন এখানে ভিড় করেছে ভ্রমণপিপাসুরা। এতে উপেক্ষিত রয়ে গেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে জেলা প্রশাসানের জারিকৃত নয়টি নির্দেশনা।

গত ১এপ্রিল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসন জেলার সকল পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ ঘোষনাসহ নয়টি নির্দেশনা সংশ্লিষ্ট একটি গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে। জেলা প্রশাসনের নির্দশ জারি পরেও জেলার রায়পুর উপজেলার মেঘনা নদীর পাড়ে অবস্থিত রায়পুর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান অলতাফ মাস্টরের নামে তৈরী করা অলতাফ মাস্টার মাছঘাটটিতে প্রতিদিন হাজারো পর্যটক ভিড় করছে।

স্থানীয়রা বলেছেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যানের নামে ঘড়ে উঠা ঘাটটিতে আইনের কোন তোয়াক্কা না করে করোনাভাইরাসের মধ্যে প্রতিদিন হাজারো পর্যটক আসেন। প্রভাব সালি এই নেতা নিজের নামে তৈরী করা মাছঘাটটি নিজে এই নিয়ন্ত্রন করেন। জেলা প্রশাসনের নির্দেশনার পরও তিনি ঘাটটি পর্যটকদের আগম বন্ধে কোন উদ্যোগ নেন নি। আইশৃংঙ্খলা বাহিনীর কোন লোকও এখানে আসেনি। এই অবস্থা চলতে থাকলে জেলায় করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রনের বাহিরে চলে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন তারা।

রায়পুর উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউপির মেঘনার তীরে গড়ে উঠা আলতাফ মাস্টারের মাছঘাটের নতুন নাম ‘মিনি কক্সবাজার’। বিকাল হলেই মানুষ মেঘনা নদীর পাড়ে ওই মাছ ঘাটে ছুটে যায়। তীরে সব ভ্রমণপিপাসুদের ভিড়। তাদের কেউ কেউ নৌকা চড়ে গাদাগাদি করে নদীতে গুরছেন। আবার কেউ কেউ নদীর পাড়েই দলবেদে গুরে বেড়াচ্ছেন। পুরো নদীর তীর ও তার আশপাশের এলাকা সমুদ্র সৈকতের মতো করে সাজানো। এখানে সকাল বেলাটা খুব ভালো কাটে, দুপুর কিছুটা মন্থর, তবে বিকাল বেলা অনেক বেশি জমজমাট হয়। ভ্রমণপিপাসুদের কাছে দিন দিন প্রিয় হয়ে উঠা এই স্থানটিতে কোরনাভাইরাসের উদ্যেগতির মধ্যেও পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে। করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মানার কোন বালাই ছিল না তাদের মধ্যে। একজন পর্যটকের মুখেও ছিলোনা মাস্ক।

শুক্রবার বিকেলে সরজমিনে আলতাফ মাস্টারের মাছঘাটে গিয়ে দেখ যায়, জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা এই মানুষদের যেমন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোন প্রবণতা নেই। আবার স্বাস্থ্যবিধি নজরদারি করার মতো নেই কোন ব্যবস্থা। করোনার এই বিপর্যয়ের মধ্যে পর্যটকদের এমন ভিড় দেখে স্থানীয়রা আতঙ্কে আছেন যেকোনো মুহূর্তে ভাইরাসের হটস্পটে পরিণত হতে পারে লক্ষ্মীপুর জেলা। জেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় পর্যটন এলাকা সব বন্ধ থাকা সত্ত্বেও এখানে দেখা গেছে অসংখ্য মানুষের ভিড়। এতে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আতঙ্কে আছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

স্থানীয়রা জানান, সাপ্তাহের অন্য দিন গুলোতে পর্যটকরা অল্প স্বল্প আসে। কিন্তু শুক্রবারগুলোয় এতো ভিড় হয় ভাবা যায় না। যেখানে সরকার করোনা পরিস্থি সামলাতে হিমসিম খাচ্ছে। সেখানে কি করে করোনা পরিস্থির এই ভয়াবহ তার মধ্যে আলতাফ মাস্টারের মাছঘাটের পর্যটন স্পটটি খোলা রয়েছে। প্রতিদিন এই স্থানে এতো মানুষের আগমনে জেলায় করোনা পরিস্থি কি জানি হয় এখন তাই দেখার বিষয়।

এদিকে যারা এই সময়ে ঘুরতে বেড়িয়েছেন তারাও ভাবেননি প্রাদুর্ভাবের এই সময়ে এতো মানুষের ভিড় থাকবে। ছুটিদিনে কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে এখানে এসেছেন মাহি, ফয়সাল, শিপন, ফাহাদসহ বেশ হয়েক জন। এসে এই এলাকায় তারা কাউকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে দেখেননি। বিষয়টি নজরদারি করার মতো কোন ব্যবস্থাও চোখে পড়েনি তাদের। অবশ্য এ নিয়ে তারা নিজেরাও খুব চিন্তিত নন।

তারা বলেন, এখানে কারো মুখে কোন মাস্ক নাই, কোন স্বাস্থ্যবিধিও নাই। এখানে এতো মানুষের ভিড় দেখবো চিন্তাও করিনি আমারা। এবিষয়ে রায়পুর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আলতাফ মাস্টার বলেন, এখানে বন্ধ করার কিছু নাই। ঘাটে তো কোন গেইট নাই, যে আমরা তালা মেরে বন্ধ করে দিব।

রায়পুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবরিন চৌধুরী বলেন, আলতাফ মাস্টার মাছঘাট পর্যটন স্পটটি বন্ধ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। এবিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email

Source link