জাল সনদ দিয়ে কলেজে শিক্ষকতা, মহিলা প্রভাষক গ্রেফতার

নোয়াখালী প্রতিনিধিঃ নোয়াখালীতে জাল সনদের মাধ্যমে শিক্ষকতা করার অভিযোগে হাতিয়া ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক শাহিদা আক্তার রুবিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযুক্ত শাহিদা আক্তার হাতিয়া উপজেলার চর কৈলাশ গ্রামের কে এম ওবায়েদুল্লাহ স্ত্রী।
রোববার দুদুক একটি দল তাকে গ্রেফতার করে। সূত্রে জানা যায়, শাহিদা আক্তার রুবি বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ এর ২০১০ সনের পরীক্ষার রোল-৪০৬০২৭৯৪, রেজি-১০০০০১২৬২ পরীক্ষা- ষষ্ঠ-২০১০ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি এর লেকচারার পদে একটি জাল ও ভুয়া সনদ প্রস্তুত করে হাতিয়া ডিগ্রী কলেজে প্রভাষক (ইসলামের ইতিহাস) হিসেবে যোগদান করেন।
পরবর্তীতে এমপিওভুক্ত হয়ে ইনডেক্স নং ৩০৮৪৪২১ মূলে ০১-১১-২০১২ তারিখ হতে ৩১-০৩-২০১৬ তারিখ পর্যন্ত বেতন ভাতা বাবদ ৫,৩৮,৯৭৫ টাকা গ্রহণ করে আত্মসাৎ করেন।
শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের শিক্ষা পরিদর্শক জনাব টুটুল কুমার নাগ এবং অডিট অফিসার জনাব গোলাম মুর্তজা গত ০৩-১২-২০১৫ তারিখে নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার হাতিয়া ডিগ্রী কলেজ নিরীক্ষা করলে সনদের সত্যতা নিশ্চিত না হওয়ায় এটিকে জাল সনদ হিসাবে আখ্যায়িত করে।
এ বিষয়ে নোয়াখালী দুদকের সহকারী পরিচালক সুবেল আহমেদ জানান, শাহিদা আক্তার রুবি প্রভাষক (ইসলামের ইতিহাস) তার ইনডেক্স নং ৩০৮৪৪২১ সে হাতিয়া ডিগ্রী কলেজে দীর্ঘদিন ধরে জাল সনদের মাধ্যমে শিক্ষকতা করে আসছিল। পরে আমরা অনুসন্ধানের মাধ্যমে তার জাল সনদের সত্যতা নিশ্চিত করি। সে উক্ত সনদ গোপন করে ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে জালিয়াতি ও প্রতারণামূলকভাবে অপরাধজনক বিশ্বাসভঙ্গ করায় সরকারী ৫,৩৮,৯৭৫/- (পাঁচ লক্ষ আটত্রিশ হাজার নয়শত পঁচাত্তর) টাকা আত্মসাৎ করেছেন যা অনুসন্ধানকালে প্রমাণিত হয়েছে।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.