ছাত্রলীগের উদ্যোগে বিনামূল্যে শিক্ষা সহায়তা

117


স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: ছাত্রলীগের উদ্যোগে করোনাকালে এক হাজারের বেশি শিক্ষার্থীকে অনলাইনে বিনামূল্যে শিক্ষা সহায়তা দিচ্ছে ‘ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া সাইন্স একাডেমি’। নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীর বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীরা অনলাইনে এ বিনামূল্যে শিক্ষা সহায়তা পাচ্ছে। বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজের ১০০ ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর সমন্বয়ে গঠিত একটি টিম এ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এ কার্যক্রমের কো-অর্ডিনেটর বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের উপ বিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক খন্দকার হাবীব আহসান।

গত বছরের অক্টোবর থেকে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া সাইন্স একাডেমি সংগঠনের মাধ্যমে ছাত্রলীগের বিনামূল্যে শিক্ষা সহায়তা কার্যক্রম শুরু হয়। ১৫ জন অসচ্ছল শিক্ষার্থীকে শিক্ষা সহায়তা দেওয়ার মাধ্যমে উদ্যোগের যাত্রা শুরু হয়। পরে বছরের শেষ নাগাদ শিক্ষার্থীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৬৫ জন।

এ বছরে করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাওয়ায় এ কার্যক্রম আরও জোরদার করা হয়। ফলে চলতি বছরের জুলাই মাসে শিক্ষার্থী সংখ্যা হাজার ছাড়িয়ে যায়। এই এক হাজারের বেশি শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে শিক্ষা সহায়তা দিচ্ছেন ৬৩ জন শিক্ষক। শিক্ষকদের প্রত্যেকেই ছাত্রলীগের নেতাকর্মী।

উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন,  শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খোলা অবধি বিনামূল্যে শিক্ষা সহায়তা দেওয়া চলবে। এ ব্যাপারে খন্দকার হাবীব আহসান বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীর সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিদিন গড়ে ৩ থেকে ৪ টি ব্যাচে ৮০/১০০ জন শিক্ষার্থী নতুন করে সহায়তাটি নিতে যুক্ত হচ্ছেন।

তিনি বলেন, প্রতি শিক্ষক ১৫থেকে ২০ জনের এক একটি গ্রুপকে সপ্তাহে ন্যূনতম তিন দিন—পদার্থ, রসায়ন, গণিত, জীববিজ্ঞান, আইসিটি, ইংরেজি বিষয়ে অনলাইনে জুম এবং গুগল মিট-এর মাধ্যমে ক্লাস নিচ্ছেন। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য এটি একটি স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রম। এই কার্যক্রমটি পরিচালনার জন্য কারো কাছ থেকে কোনো ধরণের আর্থিক সহায়তা নেওয়া হচ্ছে না। সর্বমোট ১০০ জন শিক্ষক রয়েছেন, যারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, কুয়েট, রুয়েট, চুয়েট, ঢাকা মেডিকেল কলেজ, সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ, রাঙ্গামাটি মেডিকেল কলেজ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, বহির্বিশ্বে রাশিয়া, কানাডাযসহ কয়েকটি দেশে অধ্যয়নরত বাংলাদেশী শিক্ষার্থী এবং অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীরা।

খন্দকার হাবীব আহসান বলেন, সহায়তাটি থেকে উপকৃত হচ্ছে দেশের আটটি বিভাগেরই শিক্ষার্থীরা। এখানে নটরডেম কলেজ, রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ , ভিকারুননিসা নুন স্কুল এন্ড কলেজ, ক্যাডেট কলেজ সমূহের এবং জেলা স্কুলগুলোর শিক্ষার্থীরা যেমন রয়েছে, গ্রামের স্কুল কলেজ এবং মাদরাসার বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীরাও রয়েছে।

বাংলাদেশ এগ্রিকালচার রিসার্চ ইনস্টিটিউট হাইস্কুলের শিক্ষার্থী ফাতেমা তুজ জহুরা ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া সাইন্স একাডেমি থেকে শিক্ষা সহায়তা নিচ্ছেন। তিনি বলেন, করোনায় যেখানে সব ধরনের প্রাইভেট, টিউশনি বন্ধ হয়ে গেছে, সে জায়গায় ছাত্রলীগ যে উদ্যোগ নিয়েছে তা অবশ্যই প্রশংসনীয়। যারা ক্লাস নিচ্ছেন, তাদের কাছ থেকে অনেক কিছু শিখেছি।

রংপুর সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণিতে অধ্যয়নরত রিফাত হাসান বলেন, আমার আগে যে সমস্যাগুলো ছিল, ক্লাসগুলো করার মাধ্যমে তার অনেকটা সমাধান হয়েছে। দেশের সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা আমাদের ক্লাস নেন। এজন্য আমি খুব গর্ব অনুভব করি।

ছাত্রলীগের উপবিজ্ঞান বিষয়ক সম্পাদক উদ্যোক্তা খন্দকার হাবীব আহসান জানান, দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে যেকোন শিক্ষার্থী বিনামূল্যে সহায়তাটি নিতে পারবে। তবে সহায়তা কার্যক্রমটি বিনামূল্যে দিতে অংশগ্রহণ করতে চাইলে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের, অসাম্প্রদায়িক ও প্রগতিশীল চেতনা লালনকারী যে কাউকে আহ্বান জানানো হয়েছে। সহায়তা কার্যক্রমটি পেতে বা কার্যক্রমটির সঙ্গে যুক্ত হতে এই নম্বরগুলোতে যোগাযোগ করা যাবে।

কার্যক্রমটির সঙ্গে যুক্ত হতে যোগাযোগ করতে হবে ০১৭৪০০০০০৭৫, ০১৯৭১৪৮৫২৬৬ এই দুটি নাম্বারের যেকোনো একটিতে। অথবা Fb/DrMAWazedMiahSA ফেসবুক পেইজ কিংবা ইমেইল- drmawazedmiahscienceacademy@gmail.com এর মাধ্যমেও যোগাযোগ করা যাবে।

সারাবাংলা/আইই





Source link