চৈত্র সংক্রান্তি মানেই বাংলার ঘরে ঘরে পাঁচন, রইল রেসিপি

134


এসে গেল চৈত্র সংক্রান্তি৷ আর চৈত্র সংক্রান্তি মানেই বাঙালির ঘরে ঘরে পাঁচন৷ টক, ঝাল, নোনতা, মিষ্টি, তেতো সব রকম স্বাদ মিলিয়ে তৈরি হয় পাঁচন৷ সব রকম সব্জি, শাক, বীজ, ডাল দিয়ে রান্না সুস্বাদু পাঁচন খাওয়ার কারণটাও খুব সুন্দর৷ একদিকে যেমন সবরকম দুঃখ-দুর্দশা বছরের শেষ দিনে পিছনে ফেলে নতুন বছরকে বরণ করে নেওয়া, তেমনই জীবনের চলার পথে মিষ্টি-টক-তেতো সবরকম অভিজ্ঞতাকে গ্রহণ করে নেওয়ার রূপক হল পাঁচন খাওয়ার রীতি৷ আবার চৈত্র মাসের গরমে শরীর সুস্থ রাখতে, রোগভোগ দূর করতেও সাহায্য করে সব স্বাদের মিশেলে তৈরি পাঁচন৷ শিখে নিন রেসিপি৷

কী কী লাগবে

এঁচোড়-৫০০ গ্রাম
কুমড়ো, ঝিঙে, বিন, গাজর, বেগুন, আলু, কাঁচকলা, রাঙাআলু, উচ্ছে, সজনে ডাঁটা, মুলো-সব ১টা করে ডুমো করে কাটা
শাক-যা যা পাওয়া যায়
ছোলার ডালের বড়া
সিম বিচি
কাঁচালঙ্কা-২,৩টে
তেজপাতা-১টা
শুকনো লঙ্কা-১টা
পাঁচ ফোড়ন-আধ চা চামচ
আদা বাটা-আধ চা চামচ
হলুদ গুঁড়ো-আধ চা চামচ
জিরে গুঁড়ো-আধ চা চামচ
ধনে গুঁড়ো-আধ চা চামচ
নুন-স্বাদ মতো
চিনি-আধ চা চামচ
ঘি-সামান্য
সর্ষের তেল-প্রয়োজন মতো

কীভাবে বানাবেন

এঁচোড় ডুমো করে কেটে সামান্য নুন ও গুঁড়ো হলুদ দিয়ে সিদ্ধ করে নিন জলে৷ জল ঝরিয়ে সরিয়ে রাখুন৷ সিম বিচি শুকনো খোলায় নেড়ে নিয়ে সিদ্ধ করে নরম করে নিন৷ খোসা ছাড়িয়ে রাখুন৷ ছোলার ডালের বড়া ৩-৪ মিনিট জলে ভিজিয়ে রেখে নরম করে নিন৷
এবার কড়াইতে তেল গরম করুন৷ শুকনো লঙ্কা, তেজপাতা ও পাঁচ ফোড়ন দিন৷ সুন্দর গন্ধ বেরোলে সব সব্জি ও কাঁচা লঙ্কা দিয়ে দিন৷ নুন, হলুদ দিয়ে ভাল করে নেড়ে চাপা দিয়ে মাঝারি আঁচে ১২-১৫ মিনিট সিদ্ধ হতে দিন৷ মাঝে মাঝে নাড়বেন যাতে ধরে না যায়৷
সব্জি কিছুটা সিদ্ধ হলে এঁচোড় দিয়ে সব মশলা দিয়ে দিন৷ ভাল করে মিশিয়ে ৪-৫ মিনিট নেড়ে আধ গ্লাস জল দিনষ প্রয়োজনে বেশি জল দিতে পারেন৷ বেশ ঘন সব্জি তৈরি হলে সিম বিচি ও ছোলার ডালের বড়া দিন৷ নুন, মিষ্টি, ঝাল চেখে দেখুন৷ সব শেষে আধ চা চামচ ঘি ও গরম মশলা গুঁড়ো ছড়িয়ে নামিয়ে নিন৷



Source link