চীনের সঙ্গে যুদ্ধ চায় না তাইওয়ান

79


আন্তর্জাতিক ডেস্ক

চীনের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াবে না তাইওয়ান। কিন্তু, নিজেদেরকে পরিপূর্ণভাবে রক্ষা করতে যা করা প্রয়োজন তা করবে বলে জানিয়েছেন তাইওয়ানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী চিউ কুও চেং।

চীন-তাইওয়ান সাম্প্রতিক উত্তেজনার প্রেক্ষিতে বিশ্বজুড়ে দেখা দেওয়া উদ্বেগের মধ্যে বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) এ কথা জানিয়েছেন তিনি।

হামলার মুখে নিজেদের রক্ষা করা করার কথা বারবার বলে আসছে তাইওয়ান, তবে তারা বেপরোয়াভাবে এগিয়ে যাবে না এবং চীনের সঙ্গে বিদ্যমান স্থিতাবস্থা বজায় রাখতেও আগ্রহী।

পার্লামেন্টের কমিটি বৈঠকে চিউ তাইওয়ানের দাফতরিক নাম ব্যবহার করে বলেন, যদি কেউ তাইওয়ানের দিকে অগ্রসর হয় তাহলে পূর্ণশক্তি দিয়ে শত্রুর মোকাবিলা করা হবে।

এর আগের সপ্তাহে চিউ বলেছিলেন, ৪০ বছরের মধ্যে চীনের সঙ্গে তাইওয়ানের সামরিক উত্তেজনা সবচেয়ে খারাপ পর্যায়ে পৌঁছেছে। পাশাপাশি, ২০২৫ সালের মধ্যে চীন তাইওয়ানে আক্রমণ চালানোর সক্ষমতা অর্জন করবে বলেও সতর্ক করেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ১ অক্টোবর থেকে পরপর চার দিন তাইওয়ানের আকাশ প্রতিরক্ষা জোনে (এআইডিজেড) চীনের ব্যাপক সংখ্যক যুদ্ধবিমান অনুপ্রবেশের পর এসব কথা বলেছেন চিউ। সামরিকভাবে হয়রানি করতেই বেইজিং এসব পদক্ষেপ নিচ্ছে বলে ধারণা তাইওয়ানের।

এদিকে, চীনা বাহিনী তাইওয়ানের বেশি কাছে ঘেঁষলে কড়া পাল্টা জবাব দেওয়া হবে বলে পার্লামেন্টকে দেওয়া এক প্রতিবেদনে চীনকে হুঁশিয়ারি জানিয়েছে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

অপরদিকে, তাইওয়ানের কাছে সামরিক মহড়া চালানোকে ন্যায়সঙ্গত পদক্ষেপ বলে সাফাই গেয়েছে চীন।

বুধবার চীনের তাইওয়ান বিষয়ক কার্যালয় বলেছে, তাইওয়ানের কাছে চীনের সামরিক মহড়া দ্বীপটির স্বাধীনতার পক্ষে থাকা বহিঃশক্তিকে মোকাবিলা এবং শান্তি-স্থিতিশীলতা রক্ষায় একটি ন্যায়সঙ্গত পদক্ষেপ।

সারাবাংলা/একেএম





Source link