চাঁদা চেয়ে না পেয়ে বিল্ডিং মালিককে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁসে গেলেন। ইয়াবা সহ গ্রেফতার ০৪ (চার) জন

০১/০৮/২০১৯ তারিখ রাত ০০.৩০ ঘটিকার সময় বাকলিয়া থানাধীন কল্পলোক আবাসিক বি-ব্লক বাড়ী নং- বি-১১৫ বিল্ডিং এর মালিক মোঃ নজরুল ইসলাম (৪৮) কল্পলোক আবাসিকে বাড়ী নির্মাণ করার সময় গ্রেফতারকৃত আসামী-১। মোঃ বাপ্পী(১৯), ২। মোঃ নিশান(১৮), ৩। সিদ্দিকুর রহমান(২০), ৪। ইয়াসিন বিন ফয়সাল(১৮) গণ বিভিন্ন তারিখ ও সময়ে বিল্ডিং মালিক এর বাসায় গিয়ে তাহার নিকট ১০,০০,০০০/- (দশ লক্ষ) টাকা চাঁদা দাবী করে। অন্যথায় বিল্ডিং মালিককে কল্পলোক আবাসিকে বিল্ডিং করে বসবাস করিতে দিবে না বলিয়া উল্লেখিত আসামীগণ বিভিন্ন সময় হুমকিও প্রদান করিত। ১নং আসামী মোঃ বাপ্পী (১৯) থানায় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সংবাদ প্রদান করেন যে, বাকলিয়া থানাধীন কল্পলোক আবাসিক বি-ব্লক বাড়ী নং- বি-১১৫, ৩য় তলায় নজরুল ইসলাম এর বাসার ভিতর ইয়াবা ট্যাবলেট আছে। ১নং আসামীর উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে বাকলিয়া থানা পুলিশ উল্লেখিত স্থানে পৌছিয়া নজরুল ইসলামের বাসার ভিতরে তল্লাশী করিয়া বাসার কোথায় ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া যায় নাই। ঐ সময় ১নং আসামী বাপ্পী ও ৩নং আসামী সিদ্দিকুর রহমান উক্ত বাসার ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করিলে পুলিশ অফিসার ১নং আসামী মোঃ বাপ্পী(১৯) এর দেহ তল্লাশী করাকালে তাহার ডান হাতের মুঠোর ভিতর হইতে পত্রিকার কাগজে মোড়ানো সাদা প্যাকেট ভর্তি ০৪(চার) পিচ লালচে রংয়ের ইয়াবা ট্যাবলেট প্রাপ্ত হইয়া উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে উদ্ধার পূর্বক এসআই/মোঃ আসাদুর রহমান ইং ০১/০৮/২০১৯ তারিখ রাত ০০.৪৫ ঘটিকার সময় জব্দ তালিকা মূলে জব্দ করেন। উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে ধৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, বিল্ডিংয়ের মালিক নজরুল ইসলাম এর নিকট বিভিন্ন সময় চাঁদা চেয়ে না পেয়ে তাকে ফাঁসানোর জন্য চাঁদা আদায়ের উদ্দেশ্যে উক্ত ইয়াবা ট্যাবলেট সমূহ ৩নং বিবাদী সিদ্দিকুর রহমান(২০) তাহাকে প্রদান করিয়াছে মর্মে স্বীকার করে। পরবর্তীতে গ্রেফতারকৃত ১ ও ৩নং আসামীদ্বয়ের স্বীকারোক্তি ও তাহাদের দেখানো মতে ২ ও ৪নং আসামীদ্বয়কে অভিযান পরিচালনা করিয়া গ্রেফতার করিতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে তাহারা জানায়, বিল্ডিংয়ের মালিকের নিকট চাঁদা চেয়ে না পেয়ে তাহারা পরষ্পর যোগসাজসে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে বিল্ডিংয়ের মালিক নজরুল ইসলামকে ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে তাহারা নিজেরাই ফেঁসে যায়। উল্লেখ্য যে, ইতিপূর্বেও তাহারা বিল্ডিংয়ের মালিককে ফাঁসানোর উদ্দেশ্যে একাধিকবার থানার বিভিন্ন অফিসারকে মোবাইল ফোন করিয়া উক্ত বাসার ভিতরে ইয়াবা ট্যাবলেট আছে বলিয়া সংবাদ প্রদান করে। কিন্তু আসামীদের তথ্য ও সংবাদ বিশ্বাসযোগ্য না হওয়ার কারণে থানার কোন অফিসার সেখানে উপস্থিত হয় নাই। বর্ণিত আসামীগণ স্থানীয়ভাবে অত্যন্ত খারাপ প্রকৃতির। তাহাদের প্রকাশ্যে কোন জীবিকা নির্বাহের উৎস নাই। তাহারা বাকলিয়া থানা সহ মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটন করিয়া মর্মে স্বীকার করে। উল্লেখিত ঘটনায় আসামীদের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও মাদকদ্রব্য আইনের নিয়মিত মামলা রুজু হয় এবং আসামীদেরকে যথাযথ নিয়মে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করা হইয়াছে। তম্মধ্যে ধৃত ১নং আসামী মোঃ বাপ্পী(১৯) মামলার ঘটনায় সে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করিয়া তাহার সহযোগীদের নাম-ঠিকানা প্রকাশ করিয়া বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের নাম ও ঠিকানাঃ
১। মোঃ বাপ্পী(১৯), পিতা-মোঃ রহিম, মাতা- লাকি আক্তার, সাং- কালামিয়া বাজার, বড় বাড়ী, হোসেন সওদাগরের বাড়ী, থানা- বাকলিয়া, জেলা- চট্টগ্রাম, ২। মোঃ নিশান(১৮), পিতা- আব্দুস শুক্কুর, মাতা- লাকি বেগম, সাং- সৈয়দ শাহ রোড, কাশেম আলী বাপের বাড়ী, ইসহাক সাহেবের ভাড়া ঘর, থানা- বাকলিয়া, জেলা- চট্টগ্রাম, ৩। সিদ্দিকুর রহমান(২০), পিতা- রফিকুল্লা, সাং- বজলকোট, কাজী বাড়ী, থানা- চাটখিল, জেলা- নোয়াখালী, বর্তমানে- ফুলকলীর পিছনে, শাহ আমানত হাউজিং সোসাইটি, হাজী সাহেবের বিল্ডিং, থানা- বাকলিয়া, জেলা- চট্টগ্রাম, ৪। ইয়াসিন বিন ফয়সাল(১৮), পিতা- আহমদ নুর, সাং- কালামিয়া বাজার, বড় বাড়ী, থানা- বাকলিয়া, জেলা- চট্টগ্রাম।

!-- Composite Start -->
Loading...
মতামত দিন

Post Author: bdnewstimes