গোপন বৈঠকে মোদী, পাকিস্থানের সাথে যে কোন সময় যুদ্ধে নামতে পারে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: দেশের ইতিহাসে সবথেকে বড় জঙ্গি হামলা। ভয়ঙ্কর এই হামলায় ৪০ জনেরও বেশি সিআরপিএফ জওয়ান শহিদ হয়েছেন। তবে সংখ্যাটা আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এই ঘটনায় গর্জে উঠেছে গোটা দেশ। যে কোনও মূল্যে পাকিস্তানকে জবাব দেওয়ার দাবি উঠেছে সর্বত্র।

এমনকি ফের সার্জিকাল স্ট্রাইক চালানোরও দাবি উঠছে। এই ঘটনার জন্যে যে পাকিস্তানকে চরম মূল্য দিতে হবে সেই ইঙ্গিত ইতিমধ্যে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর এরপরেই বদলা নেওয়ার জন্যে ভারতীয় সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়ার ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর।

!-- Composite Start -->
Loading...

এক হিন্দি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক, এরপরেই পাকিস্তানকে যোগ্য জবাব দেওয়া শুরু করেছে ভারতীয় সেনা। পুঞ্চ সেক্টরে সীমান্তের ওপারে থাকা পাকিস্তান সেনা ছাউনি টার্গেট করে হেভি শেলিং শুরু করেছে। যদিও ওই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক প্রথমে পাকিস্তানের তরফেই প্রথম গুলি চলে।

আর এরপরেই ভারতীয় সেনার তরফে কার্যত একেবারে খোলা হাতে পাকিস্তান সেনাকে জবাব দেওয়া হয় বলে ওই সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয়। শুধু তাই নয়, সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক, ভারতীয় সেনার প্রত্যাঘাতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে পাকিস্তানের মাটিতে। পাক-রেঞ্জার্সের একাধিক ছাউনি ধ্বংস হয়ে গিয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে সংবাদমাধ্যমে।

তবে এখানেই শেষ নয়, পাকিস্তানের উপর আরও মারাত্মক আঘাত হানার ছক কষছে ভারত। ওই সংবাদমাধ্যমেই প্রকাশিত খবর মোতাবেক, সার্জিকাল স্ট্রাইকের নেতৃত্বে থাকা ভারতীয় সেনার দক্ষ ওই অফিসারকে ইতিমধ্যে তলব করা হয়েছে নর্থ ব্লকে। ওই অফিসারের সঙ্গে বৈঠকে বসতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। সেই বৈঠকে ভারতীয় সেনার তিন বাহিনীর প্রধানরাও থাকতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ওই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক, ভারতীয় সেনার ওই জাবাজ অফিসারের নেতৃত্বেই পাকিস্তানের উপর হামলা চালাতে পারে ভারত।
সার্জিকাল স্ট্রাইকের নেতৃত্বে থাকা ওই অফিসার একাধিকবার সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একাধিক অপারেশন চালিয়েছে। শুধু তাই নয়, সেনাবাহিনীকে নেতৃত্ব দেওয়া থেকে শুরু করে যে কোনও ধরনের পরিস্থিতির জন্যে তৈরি এই অফিসার। ভারতীয় সেনাবাহিনীতে থাকা জাবাজ অফিসারদের মধ্যে একজন সার্জিকাল স্ট্রাইকের নেতৃত্বে থাকা এই অফিসার। ফলে তাঁকেই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ‘যুদ্ধের-ময়দানে’ নামাতে চাইছে মোদী সরকার।

মতামত দিন

Post Author: newsdesk

A thousand enemies is not enough; a single enemy is. There is nothing as a ‘harmless’ enemy.