গৃহকর্মী শিশুর শরীর ঝলসে দিয়ে স্ত্রীসহ ব্যাংক কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

0
110

ঢাকা, ০৭ ফেব্রুয়ারি – গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে ময়মনসিংহে এক ব্যাংক কর্মকর্তা ও তার স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ও তার স্ত্রী মুন্নী। গতকাল শনিবার ঘটনাটি ঘটে।

লাঠি দিয়ে পিটিয়ে, গরম খুন্তি দিয়ে ছেঁকা ও গরম পানি ঢেলে শরীর ঝলসে দিয়ে ভুক্তভোগী গৃহকর্মীকে তার বাবা-মার কাছে দিয়ে যাওয়ার সময় এলাকার লোকজনের হাতে আটক হন ব্যাংকার মিজানুর রহমান ও তার স্ত্রী মুন্নী।

ভুক্তভোগীর নাম নিশি (১৩)। তার বাবার নাম মুজিবুর রহমান। তিনি একজন প্রতিবন্ধী। তাদের বাড়ি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার রাজবাড়ি গ্রামে। শনিবার রাতে মেয়েকে নির্যাতনের অভিযোগে বাদী হয়ে কোতোয়ালী থানায় মামলা করেছেন মুজিবুর রহমান।

আরও পড়ুন : ডিজে নেহার রঙিন দুনিয়া সম্পর্কে যা জানা গেল

এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সুব্রত সাহা। তিনি বলেন, তিন বছর আগে মজিবুর তার ১০ বছরের মেয়ে লিলিকে ঢাকার ধানমন্ডিতে বসবাসরত ব্যাংক কর্মকর্তা মিজানুরের বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজে পাঠান। এই তিন বছর নানা সময় মিজানুর ও তার স্ত্রী মুন্নী শিশুটিকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে, গরম খুন্তি দিয়ে ছেঁকা ও গরম পানি ঢেলে শরীর ঝলসে দেয়। গতকাল শনিবার আহত অবস্থায় লিলিকে তার বাবার হাতে তুলে দিতে মাইক্রোবাস নিয়ে রাজবাড়ি গ্রামে আসেন মিজানুর ও মুন্নী।

এসআই আরও বলেন, পাটগুদাম ব্রিজ মোড়ে মুজিবুরের হাতে মেয়েকে তুলে দেন ওই স্বামী-স্ত্রী। এ সময় মেয়ের অবস্থা দেখে জোরে শব্দ করে কেঁদে ওঠেন লিলির বাবা ও অন্যান্য অভিভাবক। এ সময় স্থানীয়রা ছুটে আসেন। বেগতিক পরিস্থিতি অনুধাবন করতে পেরে মিজানুর ও মুন্নী পালাতে দৌঁড় দেন। কিন্তু স্থানীয়রা তাদের আটকে ফেলতে সক্ষম হয়। পরে তারা জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে কল করলে পুলিশ এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে ও ওই দম্পতিকে আটক করে। রাতে লিলির বাবা বাদী হয়ে মামলা করলে ওই দম্পতিকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। ময়মনসিংহ কোতোয়ালী থানায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা রুজু করা হয়েছে বলেও জানান সুব্রত সাহা।

সূত্র : আমাদের সময়
এন এ/ ০৭ ফেব্রুয়ারি

Source link