গাছের শরীরে মানুষ ! হাত বার করে বাঁচতে চাইছে সে ! চমকেছে বিশ্ব

100


#কলকাতা:  গাছেরও প্রাণ আছে ! এ কথা সত্যি। জগদীশ চন্দ্র বসু কবেই মানুষকে একথা বুঝিয়ে গেছেন। কিন্তু সভ্যতার উন্নতিতে মানুষ এতটাই এগোতে শুরু করেছে, যে গাছ কেটে মিনার বানিয়েছে তারা। বাতাস দূষিত হয়েছে। কমেছে অক্সিজেন। তবুও থামেনি গাছ কেটে ইমারত বানানোর লড়াই। রোজ একটি গাছ লাগান, প্রাণ বাঁচান। এই বার্তা গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে দিচ্ছে সেই মানুষই। সচেতন বা অবচেতন যেভাবেই হোক না কেন, মানুষই গাছ কাটে, আবার তারাই গাছের প্রাণ রক্ষার কথা বলে। এটাই আমাদের অবাক পৃথিবী। আর এখানে যে রোজ কত কি নতুন ঘটে তা একটা বিস্ময় বটে।

গাছ কাটতে গিয়ে যদি দেখেন গাছের ভিতর থেকে একটা মানুষ হাত বার করে বাঁচতে চাইছে, তবে কি আর কাটতে পারা যাবে! না, হয়তো যাবে না। এমনই ঘটনায় চমকেছে বিশ্ব। ঠিক যেন সেই ‘স্টোন ম্যান’-এর গল্প। পাথর থেকে বেরিয়ে আসছে ফুটফুটে এক শিশু। অভিশাপে পাথর হয়ে গিয়েছে সে। সৎ মানুষের ডাকে ৪০ বছর পর মাত্র তিন দিন মানুষের জীবন পায় সে। বাচ্চারাই একমাত্র সৎ সেই স্টোন ম্যানের জন্য। তিন দিনের জীবন কাটিয়ে ফের পাথর। আবার ৪০ বছর অপেক্ষা সৎ আত্মার ডাকের। বয়স বাড়ে না তাঁর। বন্ধুও হয়। এমনই যেন এ গল্প। গাছ কাটতে গিয়ে দেখা গেল, হাত বার করে বাঁচতে চাইছে গাছ রূপী মানুষ !

সত্যিই কি তাই? নাকি এর পিঁছনে রয়েছে অন্য কোনও গল্প ! গল্পটা অবশ্যই অন্য। কারণ এমনটা কেবল মাত্র কাল্পনিক গল্পে হতে পারে, বাস্তবে নয়। সম্প্রতি একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় তুমুল ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে একটা কাটা গাছ থেকে বেরিয়ে আছে মানুষের হাত। সে বাঁচতে চাইছে। তা কি এই গাছের গল্প। আমেরিকায় এক ঝড়ে ওয়েলসের সব থেকে উঁচু পাইন গাছটি ভেঙে পড়ে যায়। তাই গাছটিকে কেটে ফেলার দরকার হয় ৷ কিন্তু কাঠুরে শিল্পী “সাইমন রোর্কে” গাছটির স্মৃতি ধরে রাখতে গাছটিকে না কেটে, হাতের আদলে একটি চমৎকার শিল্পরূপ দেন। আর এই গাছের ওপরে হাত দেখে চমকে উঠেছে বিশ্ব। হা হা-কার পড়েছে ছবি দেখে। বিবেক দংশন শুরু হয়েছে হাজার হাজার গাছের মৃত্যুতে। মানুষ এভাবেই তো নিজের প্রয়োজনে প্রতিদিন কত গাছের খুন করছে। তবে এ খুনের বিচার হয় না, সাজা হয় না। ঠিক যেভাবে নিহত গোলাপ বিচার পায় না। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি শেয়ার করেছেন অনেকেই। অভিনেত্রী জয়া আহসানও এই ছবি শেয়ার করে গোটা ঘটনা তুলে ধরে লিখেছেন, “সমগ্র পৃথিবীতে যারা অযথা গাছ কেটে প্রকৃতির ক্ষতিসাধন করে তাদের বিরুদ্ধে এই সিম্বল হতে পারে একটি প্রতিবাদের প্রতীক! আসুন অযথা গাছ কাটা বন্ধ করি, প্রকৃতিতে রক্ষা করি।” সকলের এই ছবি দেখে শিক্ষা নেওয়া উচিত। গাছই পারে প্রকৃতিকে রক্ষা করতে। আজ যে এত ভাইরাসের তান্ডব, তার পিঁছনে গাছ কমে যাওয়াও হয়ত পরোক্ষ কারণ হতে পারে ! নিজেদের বাঁচাতে, পরিবেশ রক্ষা করতে, প্রতিবাদ গড়ে তুলুন। এই ছবি চেতনা জাগিয়ে তুলুক। না, এখানে কোনও পরা বাস্তব গল্প নেই। সবটাই বাস্তব।



Source link