খেলাপি ঋণ ১ লাখ কোটি টাকা ছাড়ালো

92


চলতি বছরের সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১ লাখ ১ হাজার ১৫০ কোটি টাকা। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে খেলাপি ঋণ ছিল ৮৮ হাজার ৭৩৪ কোটি টাকা। সে হিসাবে চলতি বছরের প্রথম নয় মাসে খেলাপি ঋণ ১২ হাজার ৪১৬ কোটি টাকা বেড়েছে। সেপ্টেম্বর শেষে ব্যাংক খাতে ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৪৫ হাজার ৩৯১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা।

ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ৮ দশমিক ১২ শতাংশ খেলাপির খাতায় উঠেছে। ২০১৯ সালে দেশের ব্যাংক খাতের মোট খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১ লাখ ১০ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সেপ্টেম্বর শেষে রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের স্থিতি ছিল ২ লাখ ১৯ হাজার ২৯২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৪৪ হাজার ১৬ কোটি টাকাই খেলাপির খাতায় উঠেছে। রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ২০ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ বর্তমানে খেলাপি। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে এসব ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ছিল ৪২ হাজার ২৭৩ কোটি টাকা। ওই সময় বিতরণকৃত ঋণের পরিমাণ ছিল ২ লাখ ২ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা।

সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশের বেসরকারি ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের স্থিতি ছিল ৯ লাখ ২৮ হাজার ৪৯৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে ৫০ হাজার ৭৪৩ কোটি টাকা ছিল খেলাপি, যা বিতরণকৃত ঋণের ৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ। গত ডিসেম্বরে বেসরকারি ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৪০ হাজার ৩৬১ কোটি টাকা। সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিদেশি ব্যাংকের খেলাপি হয়েছে ২ হাজার ৬৯২ কোটি টাকার ঋণ, যা এসব ব্যাংকের বিতরণকৃত ঋণের ৪ দশমিক ১২ শতাংশ। বিদেশি ব্যাংকের বিতরণকৃত ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ৬৫ হাজার ২৬২ কোটি টাকা। এছাড়া সরকারি বিশেষায়িত তিন ব্যাংকের খেলাপি ঋণ ৩ হাজার ৬৯৯ কোটি টাকায় পৌঁছেছে। বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর বিতরণকৃত ঋণের ১১ দশমিক ৪৪ শতাংশ বর্তমানে খেলাপি।

সোর্সঃ রাইজিং বিডি



Source link