খুলনায় দুজনের মৃত্যু : শরীরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ ছিল

0
1015

খুলনা মেডিকেল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে গত বৃহস্পতিবার দুজনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের জ্বর, গলাব্যথা, কাশি, শ্বাসকষ্টসহ করোনাভাইরাসের উপসর্গ ছিল বলে জানিয়েছেন ওই হাসপাতলের চিকিৎসক। এদের মধ্যে একজন সম্প্রতি ভারত থেকে দেশে ফিরেছিলেন।

এ বিষয়ে খুমেক হাসপাতালের পরিচালক এ টি এম মঞ্জুর মোর্শেদ আজ শনিবার রাতে বলেন, ‘মৃত ওই দুজনের শরীরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ ছিল। কিন্তু এখানে করোনা পরীক্ষার কোনো ব্যবস্থা না থাকায় তাদের এ রোগ হয়েছিল কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।’

খোঁজ জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বেলা ১টার দিকে জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে খুলনা মেডিকেলে আসেন বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার এক ব্যক্তি (৪০)। ওই রোগীর সঙ্গে ছিলেন তার বড় বোন। তিনি অভিযোগ করেন, পাঁচ দিন ধরে জ্বর ও সর্দি-কাশিতে ভুগছিলেন তার ভাই। স্থানীয় চিকিৎসকেরা ওষুধ দিলেও তিনি সুস্থ হচ্ছিলেন না। অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেলে আনা হয়। কিন্তু কোনো কিছু পরীক্ষা না করেই চিকিৎসকেরা মনে করেছেন তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। এ কারণে একবার জরুরি বিভাগ থেকে বহির্বিভাগ তারপর আবার জরুরি বিভাগে পাঠানো হলেও তাকে কোনো চিকিৎসক দেখেননি।

তবে এ অভিযোগের বিষয়ে হাসপাতালটির পরিচালক এ টি এম মঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, ‘ওই রোগীকে দেখে কোনো চিকিৎসক কাছে আসেননি এমন অভিযোগ সত্য নয়। তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পর প্রাথমিকভাবে তার প্রেসক্রিপশন পর্যন্ত লিখেছিলেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। কিন্তু তিনি সিনিয়র কনসালট্যান্টের নির্দেশনার জন্য অপেক্ষা করছিলেন যে, তাকে কোন ওয়ার্ডে নেওয়া হবে। এর মাঝে রোগী মারা যান।’

এদিকে একই দিন রাত সাড়ে ৯টার দিকে নড়াইল থেকে আরেক ব্যক্তিকে খুলনা মেডিকেলে আনার পর চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ওই ব্যক্তি সম্প্রতি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভারতে বেড়াতে গিয়েছিলেন। এক সপ্তাহ আগে ভারত থেকে বাড়িতে ফেরেন তিনি। এরপরই জ্বর, গলাব্যথা, কাশিতে আক্রান্ত হন। স্থানীয়ভাবে তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল। বৃহস্পতিবার খুলনায় আনার পথেই তিনি মারা যান।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে