ক্যান্ডি টেস্টের শেষ বেলায় বৃষ্টির হানা

0
69

কলম্বো, ২৫ এপ্রিল – ক্যান্ডি টেস্টের পঞ্চম ও শেষ দিনের শেষ সেশনের খেলা বৃষ্টির কারণে বন্ধ রয়েছে। বৃষ্টির কারণে খেলা আর শুরু করতে না পারলে ম্যাচটি ড্র হিসেবে গণ্য করা হবে।

রোববার ম্যাচের পঞ্চম ও শেষ দিনের দ্বিতীয় সেশনের খেলা শেষে দু’দল চা বিরতিতে যাওয়ার পরই বৃষ্টি নামে।

এর আগে চা বিরতি পর্যন্ত নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলাদেশ ২ উইকেট হারিয়ে ১০০ রান তোলে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৪ রান করে তামিম ইকবাল অপরাজিত রয়েছেন। তার সঙ্গে থাকা অধিনায়ক মুমিনুল হকের সংগ্রহ ২৩ রান।

ক্যান্ডি টেস্টে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ১০৭ রানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় সেশনের শুরুতে দ্বিতীয় ইনিংসে ফের ব্যাট করতে নামে সফরকারী বাংলাদেশ। তবে ব্যাট হাতে দ্বিতীয় ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি টাইগারদের। ২৭ রান তুলতেই আউট হয়ে সাজঘরে ফিরে যান বাংলাদেশের দুই টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান।

এর আগে ৬৪৮ রান তুলে মধ্যাহ্ন বিরতিতে যাওয়া শ্রীলঙ্কা বিরতিতে থেকেই ইনিংস ঘোষণা করে। ফলে ১০৭ রানে পিছিয়ে থেকে মধ্যাহ্ন বিরতির পর দ্বিতীয় সেশনের শুরুতেই ব্যাট করতে নামে বাংলাদেশ।

প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশের ওপেনার সাইফ হাসান। মাত্র ১ রান করে সুরঙ্গা লাকমলের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন তিনি। প্রথম ইনিংসে সাইফ আউট হয়েছিলেন শূন্য রানে।

দলীয় ২১ রানে সাইফ সাজঘরে ফেরার পর ব্যাট করতে নামেন প্রথম ইনিংসে ১৬৩ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলা নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে প্রথম ইনিংসের ধারাবাহিকতা দ্বিতীয় ইনিংসে ধরে রাখতে পারেননি বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান, আউট হয়েছেন শূন্য রানে। দলীয় ২৭ রানে সুরঙ্গা লাকমলের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরে গেছেন শান্ত।

শান্ত সাজঘরে ফেরার পর ব্যাট করতে নামেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মুমিনুল হক।

বুধবার শুরু হওয়া টেস্টে টস জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত ও অধিনায়ক মুমিনুল হকের জোড়া সেঞ্চুরিতে ভর করে ৭ উইকেটে ৫৪১ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করে সফরকারী বাংলাদেশ।

শান্ত ১৬৩ ও মুমিনুল ১২৭ রান করেন। আরেক ওপেনার তামিম ইকবাল আউট হন ৯০ রান করে। মুশফিকুর রহিম অপরাজিত থাকেন ৬৮ রানে। এ ছাড়া লিটন দাস করেন ৫০ রান।

প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার পক্ষে বিশ্ব ফার্নান্ডো ৯৬ রানে ৪ উইকেট নেন। এ ছাড়া সুরঙ্গা লাকমল, লাহিরু কুমারা ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা একটি করে উইকেট নেন।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৫৪১ রানের জবাবে ব্যাট হাতে নেমে শ্রীলঙ্কাও দারুণ জবাব দেয়। ম্যাচের পঞ্চম ও শেষ দিনের মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত ব্যাট করে একটি ডাবল সেঞ্চুরি, একটি সেঞ্চুরি ও একটি হাফ সেঞ্চুরির ইনিংসে ভর করে ৬৪৮ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে স্বাগতিকরা।

প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার পক্ষে সর্বোচ্চ ২৪৪ রান করেন দিমুথ করুনারত্নে। ধনঞ্জয়া ডি সিলভা করেন ১৬৬ রান। এ ছাড়া লাহিরু থিরিমান্নে ৫৮ রান করেন।

বাংলাদেশের পক্ষে তাসকিন আহমেদ ১১২ রানে ৩টি উইকেট নেন। এছাড়া তাইজুল ইসলাম ২টি এবং এবাদত হোসেন ও মেহেদি হাসান মিরাজ একটি করে উইকেট নেন।

সূত্র : সমকাল
এন এইচ, ২৫ এপ্রিল

Source link