কোভিড সচেতনতা বাড়াতে এবার শর্ট ফিল্ম Facebook-এর, শুরু হল #MyStory ক্যাম্পেন!– News18 Bangla

74


#নয়াদিল্লি: অতিমারী পরিস্থিতি এখনও কেটে যায়নি। এখনও অনেকেই কোভিড আক্রান্ত হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে নিজেকে আরও সুরক্ষিত রাখতে হবে। ব্য়বহার করতে হবে মাস্ক ও স্য়ানিটাইজার। বার বার হাত ধোয়ার অভ্য়াস করতে হবে। এই নিয়মগুলি প্রত্য়েকে যাতে মেনে চলেন তার জন্য় বিশেষ একটি অনলাইন ক্যাম্পেন শুরু করল Facebook। নাম #MyStory। ওই সোশাল মিডিয়া জায়ান্টের সঙ্গে এই ক্য়াম্পেনের সঙ্গী হয়েছে বিল অ্যান্ড মেলিন্দা ফাউন্ডেশন (Bill & Melinda Gates Foundation), পপুলেশন ফাউন্ডেশন অফ ইন্ডিয়া (Population Foundation of India) এবং লাভ ম্যাটার্স ইন্ডিয়া (Love Matters India)।

ওই ক্য়াম্পেনটি সম্পূর্ণ পরিকল্পনা করেছে ওয়েবার স্য়ান্ডউইক ইন্ডিয়া (Weber Shandwick India)। তারা মোট ১০টি শর্ট ফিল্ম তৈরি করেছে (COVID 19 MyStory Campaign)। প্রতিটি শর্ট ফিল্মে দেখানো হয়েছে করোনায় কী ভাবে মানবজীবনে প্রভাব পড়ে। পাশাপাশি প্রতিটি মানুষের জীবনে কী কী প্রভাব ফেলেছে করোনা, তাও জানাতে আহ্বান করা হয়েছে।

এবিষয়ে Facebook-এর পার্টনারশিপ প্রধান বলেন, “অতিমারী শুরু হওয়া থেকে আমরা চিকিৎসক ও অতিমারী বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কাজ করছি। পাশাপাশি সরকারের সঙ্গেও কাজ করছি আমরা। যাতে প্রতিটি মানুষ সঠিকভাবে থাকেন এবং সব নিয়ম মেনে চলেন। এই ক্য়াম্পেনের মাধ্য়মে বোঝা যাবে কোভিড ১৯ থেকে রক্ষা পেতে কন্টেন্ট কতটা গুরুত্বপূর্ণ এবং তার মাধ্য়মে কত গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেওয়া সম্ভব।” তিনি আরও জানিয়েছেন, বিগত দেড় বছর ধরে প্রতিধি মানুষ নিজের মতো করে একটি ভিন্ন সমস্য়ার সম্মুখীন। প্রতিটি মানুষের নিজেদের গল্পকে সামনে তুলে ধরার জন্য় উৎসাহিত করবে #MyStory ক্যাম্পেন।

যে শর্ট স্টোরিগুলি তৈরি করা হয়েছে সেগুলির সবক’টিই ১৫ থেকে ২০ সেকেন্ড দৈর্ঘ্য়ের। এবং সেগুলি এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে সেগুলি প্রত্য়েকের জীবনে প্রভাব ফেলতে পারে। যেমন, একটি শর্ট ফিল্মে দেখানো হয়েছে, একজন গোয়ায় ছুটি কাটাতে যেতে চায়। কিন্তু তার এক বন্ধু তাকে মনে করিয়ে দিচ্ছে কোভিড তৃতীয় ঢেউয়ের কথা। আর একটি ফিল্মে দেখানো হয়েছে, রাখি বন্ধনের দিন এক দাদা তার বোনের জন্য় উপহার স্বরূপ করোনা টিকাকরণের স্লট বুক করে দিচ্ছে।

আরও পড়ুন: করোনার সারলেই দুশ্চিন্তা শেষ নয়! তৈরি হচ্ছে না অ্যান্টিবডি, কী বলছেন চিকিৎসকরা

এবিষয়ে পপুলার ফাউন্ডেশন অফ ইন্ডিয়ার তরফে পুনম মতরেজা জানিয়েছেন, এই শর্ট ফিল্মগুলির মাধ্য়েমে বিভিন্ন ছোট ছোট স্টোরি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এবং মহিলাদের বিশেষ করে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কারণ পরিবারের সদস্য়দের সুস্থ রাখতে মহিলারা সব থেকে বেশি সাহায্য করেন!



Source link