কোন্দল, শঙ্কায় ভালো নেই আওয়ামী লীগ

0
3277

ঢাকা, ১৩ ফেব্রুয়ারি – ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগে অস্থিরতা বেড়েই চলেছে। দলের নেতারাই স্বীকার করছেন, দলের চেইন অব কমান্ড ভেঙ্গে পরেছে। সিনিয়র নেতাদের মধ্যে সম্পর্কের টানা পোড়েনের খবর কান পাতলেই শোনা যায়। আল-জাজিরার রিপোর্ট নিয়ে অনেক আওয়ামী লীগ নেতাই শঙ্কিত। ভবিষ্যতে আরো এধরনের অপপ্রচার সরকার কিভাবে মোকাবেলা করবে, তা নিয়ে চায়ের কাপে ঝড় তুলছেন নেতারা। এরমধ্যে বিএনপির নতুন করে আন্দোলনের প্রস্তুতি, কারো কারো মনে চিন্তার উদ্বেগ ঘটাচ্ছে। সব মিলিয়ে ভালো নেই আওয়ামী লীগ। কাল রোববার স্থানীয় সরকার। পৌরসভা নির্বাচনের আরেকটি পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। এবারও আওয়ামী লীগের প্রধান সংকট বিদ্রোহী প্রার্থী।

বার বার বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে, জাতীয় কথাবার্তা এখন মূল্যহীন হয়ে পরেছে। মন্ত্রী, এমপি, কেন্দ্রীয় প্রভাবশালী নেতাদের মদদে বিদ্রোহী প্রার্থীরাই প্রবল প্রতাপে নির্বাচন প্রচারণা করেছেন। জিতলেই তাদের বরন করে নেয়া হচ্ছে। এরফলে, সারাদেশে আওয়ামী লীগ এখন কোন্দলে জর্জরিত। দলের চেইন অব কমান্ড পুরো পুরি ভেঙ্গে গেছে কোন্দলের কারণে। মাঠ পর্যায়ের নেতারাও ফ্রিস্ট্রাইলে কথা বলছেন। ইভিএম নিয়ে ফেনী আওয়ামী লীগের নেতার বক্তব্য, কিংবা ভোট নিয়ে দিনাজপুরে আওয়ামী লীগ নেত্রীর বক্তব্যে কেন্দ্রীয় নেতারাও বিব্রত।

আরও পড়ুন : আবারো বাড়ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি

দলের সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে সক্রিয় নেতাদের সম্পর্কের টানা-পোড়নের কথা এখন প্রকাশ্যেই শোনা যায়। দলের সাধারণ সম্পাদক সংগঠনের জন্য কি করছেন, এ প্রশ্ন উঠেছে। নিরাপদ দূরত্বে হাত পা গুটিয়ে আছেন প্রবীণ হেভীওয়েট নেতারা। এরমধ্যে আল-জাজিরার রিপোর্ট নিয়ে আওয়ামী লীগ শঙ্কিত। ‘শত্রুরা অনেক বেশী সক্রিয়’ বলছেন আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা। এখনই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে। আওয়ামী লীগের একজন নেতা বলেছেন ‘এসব প্রচারণার মাধ্যমে জনমনে বিভ্রান্তির চেষ্টা চলছে। তার মতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বিএনপি-জামাতের দখলে। এই প্রচারণার বিরুদ্ধে আমাদের সাংগঠনিক কর্মসূচী নেই। শুধু বিবৃতি দিয়েই আমরা ক্ষান্ত।’

এরকম প্রেক্ষাপটে সামনে সরকার বিরোধী বিএনপির আন্দোলন কিভাবে মোকাবেলা করা হবে, সে প্রশ্নও আওয়ামী লীগের মধ্যে উঠেছে। পুলিশ এবং প্রশাসন নির্ভরতা দলকে দুর্বল করছে বলেও মনে করছে নেতারা। আর এই সব মিলিয়েই ভালো নেই আওয়ামী লীগ।

সূত্র : বাংলা ইনসাইডার
এন এ/ ১৩ ফেব্রুয়ারি

Source link